হবিগঞ্জের হাওর এলাকা আজমিরীগঞ্জকে দাঙ্গা মুক্ত করার পাশাপাশি বাল্য বিয়ে ও যৌতুক প্রতিরোধের অঙ্গীকার করলেন ১০০ ইমাম ও ধর্মীয় ব্যাক্তিত্ব।

সোমবার বিকেলে ইসলামিক ফাউন্ডেশন হবিগঞ্জ’র সভাকক্ষে হাওর এলাকার জনগণের জীবনমান উন্নয়ন ও জীববৈচিত্র সংরক্ষণ সম্পর্কে উদ্বুদ্ধকরণ বিষয়ে খতীব, ইমাম ও ধর্মীয় ব্যক্তিবর্গের অংশগ্রহণে ৩ দিন মেয়াদি প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের সমাপনী অনুষ্ঠানে তারা এই অঙ্গীকার করেন।

ইসলামিক ফাউন্ডেশন হবিগঞ্জের উপ-পরিচালক শাহ মুহাম্মদ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও ফিল্ড সুপার ভাইজার সৈয়দ জিয়াউর রহমানের উপস্থাপনায় সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) বিজেন ব্যানার্জী।

বিশেষ অতিথি ছিলেন, হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শাহ ফখরুজ্জামান।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) বিজেন ব্যানার্জী বলেন, সুস্থ ও সবল জাতি গঠনে বাল্য বিবাহমুক্ত সমাজ গড়তে হবে। এর বাহিরে সমাজে যে সকল অসঙ্গতী রয়েছে তার বিরুদ্ধেও সামাজিক আন্দোলন গড়ে তোলা উচিৎ। সরকার এই উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে ইমাম এবং ধর্মীয় নেতাদের স্বক্রিয় অংশগ্রহণ কামনা করে। কারণ সাধারণ মানুষ ইমাম ও ধর্মীয় নেতাদের কথা শুনে। ইমামদেরকে দেশপ্রেম ও নৈতিক শিক্ষার প্রতি বিশেষভাবে গুরুত্ব প্রদান করতে হবে।

এর আগে গত ১৩ মার্চ প্রধান অতিথি হিসাবে এই প্রশিক্ষণের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান। প্রশিক্ষণে গুজব সন্ত্রাস এবং জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাস, বাল্য বিয়ে, মাদক ও যৌতুক নিরোধক আইন, স্বাস্থ্য ও প্রজনন স্বাস্থ্য এবং পুষ্ঠি, করোনা সতর্কতাসহ ১৫টি সেশনে বিভিন্ন আইন ও গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে রিসোর্স পার্সনরা প্রশিক্ষণ প্রদান করেন।