আফগানিস্তানের পূর্বাঞ্চলের জালালাবাদ শহরে বোমা হামলায় এক নারী চিকিৎসকের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া একদল বন্দুকধারীর গুলিতে কমপক্ষে সাত বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন।

দেশটির নানগারহার প্রদেশের কর্মকর্তারা বৃহস্পতিবার বিষয়টি নিশ্চিত করেন বলে আল জাজিরার প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

প্রদেশটির গভর্নর কার্যালয়ের এক মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, ওই নারী চিকিৎসক রিকশায় চড়ে হাসপাতালের দিকে যাচ্ছিলেন। ওই সময় রিকশার সঙ্গে লাগানো ম্যাগনেটিক বোমা বিস্ফোরিত হয়। এ ঘটনায় এক শিশুও আহত হয়।

নানগারহার প্রদেশের পুলিশপ্রধান জুমা গুল হেমাত বলেন, বন্দুকধারীদের গুলিতে নিহত ব্যক্তিরা সবাই সরখ রড জেলার একটি প্লাস্টার কারখানায় কাজ করতেন। ওই ঘটনায় সন্দেহভাজন চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

প্রাদেশিক পুলিশপ্রধানের মুখপাত্র ফরিদ খান বলেন, নিহত শ্রমিকরা আফগানিস্তানের ধর্মীয় সংখ্যালঘু শিয়া হাজারা সম্প্রদায়ের। তারা কাবুল, বামিয়ান ও উত্তরাঞ্চলের বালখ প্রদেশ থেকে নানগারহারে কাজের উদ্দেশে এসেছিলেন।

নানগারহার প্রদেশে একই দিনে দুই হামলার দায় এখনও কোনো সংগঠন নেয়নি। তবে আইএসের জঙ্গিরা শিয়া সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল।

নানগারহার হামলার দুই দিন আগে জালালাবাদ শহরেই বেসরকারি এক টেলিভিশন স্টেশনে কর্মরত তিন নারী সংবাদকর্মীকে গুলি করে হত্যা করা হয়। মুরসাল ওয়াহিদি, সাদিয়া সাদাত ও শাহনাজ রাউফি নামের ওই সংবাদকর্মীদের হত্যার দায় স্বীকার করেছিল আইএস।