দিনরাত ডেস্ক : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত পলাতক আসামি মোর্শেদ অমত্য ইসলামকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত।

রোববার (১২ জানুয়ারি) দুপুরে মোর্শেদ ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন করেন। শুনানি শেষে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট বেগম ইয়াসমিন আরার আদালত জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গত বছরের ১৩ নভেম্বর আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় ২৫ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দেয় ডিবি পুলিশ। এদের মধ্যে ১৯ জন এজাহারভুক্ত ও ৬ জন এজাহার বহির্ভূত আসামি। ২৫ আসামিদের মধ্যে ২১ আসামি কারাগারে আছেন। ৬ আসামি দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন।

গত বছরের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করেন বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের কয়েকজন নেতাকর্মী। ৫ অক্টোবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক স্ট্যাটাসের জেরে আবরার ফাহাদকে হত্যা করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তার সহপাঠীরা।

এ ঘটনায় আবরারের বাবা বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে আসামি করে রাজধানীর চকবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।