আমি বিজয়ী হলে ৩নং ওয়ার্ডকে একটি আধুনিক ও বাসযোগ্য ওয়ার্ড হিসেবে গড়ে তুলব। এছাড়াও এ ওয়ার্ডের প্রধান সমস্যা জলাবদ্ধতা নিরসনে পরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থাসহ বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান সৃষ্টি লক্ষে ৫শত যুবকদের দেয়া হবে আউটসোসিং প্রশিক্ষণ।

শুক্রবার দিনভর ওয়ার্ডের বাতিরপুর, নাতিরপুর, নোয়াহাটী, ঘাটিয়া হাটি, গার্ণিং পার্ক, কালীগাছতলা, লন্ডনীপাড়া, শ্মশানঘাট ও আনোয়ারপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগকালে এসব কথা বলেন কাউন্সিলর প্রার্থী পান্না কুমার শীল (অঙ্কন)। এসময় তিনি আরো বলেন, আমি নির্বাচিত হলে ৩নং ওয়ার্ড হবে পুরোপুরি ডিজিটাল বাংলাদেশ এর প্রথম সম্পুর্ন ফ্রী ওয়াইফাই জোন এর আওতাভুক্ত পৌর ওয়ার্ড। ওয়ার্ড এর প্রতিটি পাড়ায় ফ্রী ওয়াইফাই জোন থাকবে।

* ওয়ার্ড এর প্রত্যেক মেইন পয়েন্ট এ সিসি ক্যামেরা থাকবে এতে করে নাগরিকদের নিরাপত্তার পাশাপাশি যেকোনো অপরাধ শনাক্ত করে তা মীমাংসা করা যাবে ও আইনী ব্যাবস্থা নেওয়া যাবে।

* মাসে ১ বার অসহায় দরিদ্র মানুষদের জন্য ফ্রী মেডিক্যাল চেকাপ এর ব্যবস্থা থাকবে এমবিবিএস ডাক্তার এর মাধ্যমে।

* মাদক থেকে মুক্ত রাখার জন্য আর সুস্থ বিনোদন এর জন্য খেলার ব্যবস্থা করা হবে এবং নিয়মিত ওয়ার্ড এর পাড়াভিত্তিক বিভিন্ন টুর্নামেন্ট হবে।

* প্রত্যেক পাড়ায় নির্দিষ্ট স্থানে ডাস্টবিন থাকবে এবং নিয়মিত রাস্তা ঘাট, ড্রেন পরিষ্কার করা হবে।

* ওয়ার্ড এর উন্নয়ন এর জন্য যে টাকা বরাদ্দ দেওয়া হবে তার প্রতিটি হিসাব জনগণের কাছে প্রকাশ করা হবে।

* ওয়ার্ড এর সৌন্দর্য্য বাড়ানোর জন্য প্রতিটি পয়েন্টে লাইটিং সিস্টেম, ডিজিটাল টিভি ও গাছের ব্যবস্থা থাকবে এবং সম্ভব হলে মিনি পার্ক বা বসার জায়গা এর ব্যবস্থা করা হবে।

* প্রতি ২মাস পরপর ওয়ার্ডবাসীর সাথে কুশল বিনিময় এর আয়োজন করা হবে, এতে করে জনগণের সমস্যা জানা যাবে ও সমাধান করা সম্ভব হবে।

* প্রতিটি পাড়ায় অভিযোগবাক্স থাকবে যে কোন সমস্যা জানানোর জন্য।

* ৩নং ওয়ার্ডবাসীর জন্য নিজস্ব একটি অ্যাম্বুলেন্স থাকবে, যার মাধ্যমে শুধু তেল/গ্যাস খরচ এর মাধ্যমে অসুস্থ রোগীর জন্য জরুরী সেবা নিতে পারবেন ওয়ার্ডবাসী।

* একটি স্পেশাল টীম ও হটলাইন নাম্বার থাকবে যাদের কাজ হচ্ছে গভীর রাতে কোন অসুস্থ রোগীকে হাসপাতালে নেওয়া সহ যেকোন দুর্যোগে ওয়ার্ডবাসীর সাহায্যে এগিয়ে আসা।

* শিশু-কিশোর ও তরুণদের সৃজনশীলতা বিকাশ এর জন্য নিয়মিত- বইপড়া, চিত্রাংকন, সংগীত, বিজ্ঞানমেলা, প্রযুক্তি কর্মশালাসহ ওয়ার্ডভিত্তিক বিভিন্ন শিক্ষামূলক, সাংস্কৃতিক ও সৃজনশীল ইভেন্ট হবে।

* বয়ষ্কভাতা ও বিভিন্ন রিলিফসহ সব ধরনের নাগরিক অধিকার এর সবকিছু সঠিকভাবে এবং স্বচ্ছতার সহিত সঠিক ও উপযুক্ত ব্যক্তিদের নিকট পৌঁছে দেওয়া হবে। গণসংযোগকালে কাউন্সিলর প্রার্থী পান্না কুমার শীলের সাথে বিপুল সংখ্যক কর্মী সমর্থকসহ পাড়ার মুরুব্বীয়ানরা উপস্থিত ছিলেন।