দিনরাত প্রতিনিধি, ওসমানীনগর : ওসমানীনগরে পিইসি পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে সহকারী হল সুপার ও কক্ষ পরিদর্শকের বিরুদ্ধে পরীক্ষার্থীদের শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ব্যাপারে প্রতিকার চেয়ে পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৯ নভেম্বর গোয়ালাবাজার আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে পিইসি পরীক্ষা চলাকালিন সময়ে সহকারী হল সুপার সন্তোষ কুমার দেব ও কক্ষ পরিদর্শক মনোজ কুমার দাস তাদের ঘনিষ্ট কয়েক পরিক্ষার্থীর উত্তরপত্র লিখে দেন। এ সময় বেশ কিছু পরিক্ষার্থী এর প্রতিবাদ করলে অভিযুক্ত সহকারী হল সুপার সন্তোষ কুমার দেব ও কক্ষ পরিদর্শক মনোজ কুমার দাস প্রতিবাদী পরিক্ষার্থীদের হলের ব্রেঞ্চ সোজা করতে বলেন। পরীক্ষার্থীরা ব্রেঞ্চ সোজা করতে না পারলে তাদের শারিরীক ভাবে নির্যাতনের হুমকি দেন। এতে পরিক্ষার্থীরা মানসিকভাবে ভেঙ্গে পড়ে ও একাধিক পশ্নের উত্তর লিখতে পারেনি। পরবর্তীতে অভিভাবকরা এ ব্যাপারে উপজেলা প্রশাসন বরাবরে লিখিত অভিযোগ দেন।

গোয়ালাবাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় অভিভাবক কমিটির সভাপতি রিতাব আলী জানান, গতকাল পরীক্ষায় শিক্ষকরা তিনটা ছাত্রকে থাপ্পড় মেরেছেন। বিষয়টি জানার পর আমরা প্রশাসনকে লিখিত ভাবে জানিয়েছি।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আব্দুল মন্নান জানান, হলে দায়িত্বরত শিক্ষকরা তাদের পছন্দের ছাত্রদের প্রশ্নের উত্তর লিখে দিয়েছেন। কিছু ছাত্র এর প্রতিবাদ করলে শিক্ষকরা তাদের নির্যাতনের হুমকি দেন বলে বাচ্চার দাবী করছে।

এ বিষয়ে সহকারী হল সুপার সন্তোষ কুমার দেব জানান, এটা একটা ভিত্তিহীন সংবাদ। আমার বিরুদ্ধে এটা সাজানো নাটক।

ওসমানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. তাহমিনা আক্তার বলেন, বিষয়টি নিয়ে পরে কথা বলি।

উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ময়নুল হক চৌধুরী বলেন, এই অভিযোগ পাওয়ার পর ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ইউএন কে বলে দিয়েছি। তিনি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি হিসেবে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেবেন।