বৃহস্পতিবার | ৬ই আগস্ট, ২০২০ ইং | ২২শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৫ই জিলহজ্জ, ১৪৪১ হিজরী

শামসুদ্দিন রাজন

প্রকাশিত :

কপালী (পর্ব-৪)

শামসুদ্দিন রাজন
প্রকাশিত :

কপালী বসে আছে পুকুর ঘাটে, ইন্তানো কি বলে তা শুনার অপেক্ষায়।এদিকে ইন্তানো লজ্জায় বলতেও পারছে না খুবি ইতস্তত বোধ করছে।

-কি হলো বলবেন না?
– ইয়ে মানে কপালী টুমি ত হাটিয়ে পারিবে না,তাই হামি থিংক করিয়াছিলাম…
-বলেন মশাই বলে ফেলুন।
-হামি টুমাকে কোলে তুলিয়া লইব।

কপালী নিস্তব্ধ হয়ে গেলো,এদিকে ইন্তানো ও আর কিছু বলছে না। বেশ কিছুক্ষণ কেটে গেলো।

-টুমি কিছু বলিলে না?
-আমি কি মানা করেছি নাকি

বলেই কপালী লজ্জায় মুখে হাত দিলো।ইন্তানো কিছুটা সময় ইতস্তত বোধ করলেও খানিকটা বাদে কপালীকে কোলে নিয়ে নিলো।কপালী ইন্তানোর গলাটা দুহাত দিয়ে ভালোভাবে ধরে রাখলো। একটা দুইটা করে ইন্তানো কপালীকে নিয়ে ৩১ টা বাশের সিড়ি বেয়ে উপরে উঠলো।ঘরে গিয়ে কপালীকে বিছানায় রাখলো,কপালী দেখতে পেলো ইন্তানো ঘেমে লাল হয়ে গেছে। কপালী তার উড়না দিয়ে ইন্তানোর মুখ টা মুছতে মুছতে বললো”খুব কষ্ট হয়ে গেছে তাইনা মশাই?

ইন্তানো প্রত্যুত্তরে বললো “কষ্ট হইবে কেনো টুমি তো হালকা আছো, হামার কষ্ট হয়নাই ” বলেই ইন্তানো মুচকি হাসলো।ইন্তানো একটা মাদুর বিছিয়ে মাটিতে শুয়ে পড়লো অন্যদিকে কপালী ইন্তানোর মুখের দিকে থাকিয়ে আছে”ভীষণ একটা মায়া আছে ছেলেটার মুখে” কপালী মনে মনে ভাবলো।ইন্তানো কে দেখতে দেখতে কখন যে কপালী ঘুমিয়ে গেলো বুঝতেই পারলো না। হঠাৎ পাখির শব্দে কপালীর ঘুম ভাঙলো,কপালী বের হয়ে অনুভব করলো এ যেন স্বর্গীয় সুখ। মনোরম প্রাণ জুড়ানো বাতাস,পাখির গান,সবুজের সমারোহ আর হৃদয় জুড়ানো প্রকৃতির রূপ। কপালী চোখ বন্ধ করে নিঃশ্বাস নিচ্ছে এমন সময় কে যেনো কপালীর হাত ধরলো, কপালী ভয়ে “মাগো” বলে চিৎকার দিয়ে উঠলো।চোখ খুলে দেখে এ ত আর কেউ নয় স্বয়ং সাদা চামড়ার ভুত ইন্তানো মশাই। কপালীকে চমকে দেয়ার জন্য ইন্তানোর এই প্রয়াস।

ইন্তানো খুবি সাদাসিদা তবে একটু রসিক ও, খুব ভালো ভাবেই কপালীর সাথে মানিয়ে নিয়েছে। তারা ফ্রেশ হয়ে বের হয়ো গেলো শ্রীমঙ্গল শহরের উদ্দেশ্যে, গন্তব্য একটা রেস্তোরাঁ। তারা পানসি হোটেল এ গেলো সকালে নাস্তার জন্য কপালী নিলো ভুনা খিচুরি আর ইন্তানো রুটি আর ডিম। খুব ঝটপট তারা খাওয়া শেষ করে নিলো কারণ আজ তারা নতুন এক গন্তব্যে যাবে।

খাবার খেয়ে তারা একটা হুডতুলা রিকশায় চড়ে একটা সিএনজির কাছে গেলো,সিএনজি ড্রাইভার এর ভাস্যমতে আজ তাদের নতুন গন্তব্য মাধপুর লেক,কমলগঞ্জ।

তারা রওয়া দিয়ে দিলো…

লেক এ ঢুকার রাস্তায় গিয়েই ইন্তানোর চোখ চরকগাছ একি দেখছে সে,এ যেনো স্বর্গরাজ্য, চারদিকে সবুকে ঘেরা চা বাগান আর বাতাসে যেনো মাটির গন্ধ।
কপালী হাত বাড়িয়ে যেনো চা পাতা গুলো ছোয়ার চেষ্টা করছিলো। তারা খুবি খুশি এখানে এসে।সিএনজি থেকে নেমেই ইন্তানো কপালী কে আলতু করে জড়িয়ে ধরে বললো’হামি খুব হেপি,টুমায় নিয়ে এত সুন্দর একটা প্লেইস দেখতেছি’ কপালী স্তব্ধ হয়ে দাড়িতে রইলো।কি বলবে কি করবে কিছুই বুঝতে পারছিলোনা।ইন্তানো জন্য এটা স্বাভাবিক হলেও একজন পুরুষ জড়িয়ে ধরা কপালীর জন্য অনেক কিছু ছিলো।কপালী কোনো কথা না বলে হাটতে লাগলো, ইন্তানো ও তার পিছু পিছু। তারা মুগ্ধ হয়ে দেখছিলো প্রকৃতির এই লিলাভূমি, নৈসর্গিক এই স্থান এর প্রেমে পড়ছিলো তারা নিজের অজান্তেই।লেকের পাড়ে গিয়ে কপালী যেন পানি আর শাপলার গন্ধ পাচ্ছিলো,চোখ বন্ধ করে নিঃশ্বাস নিচ্ছিলো কপালী। ইন্তানো এই মুহূর্তটি হাতছাড়া না করে কপালীর এই দৃশ্যটি ক্যামেরাবন্ধি করে নিলো।তারা পাহাড় এ উঠে একটা কোণে বসলো।

-আচ্ছা ইন্তানো আপনি আমায় ভুলে যাবেন ভিনদেশ গিয়ে?
-নেভার কপালী,হামি টুমাকে ভুলতে পারবো না।
-আচ্ছা আপনার দেশ কতদূর কিভাবে যাইবেন?
-হামার দেশের নাম আয়ারল্যান্ড,প্লেইন করিয়া যাইতে হয়।
-আমারে লইয়া যাইবেন?
-টুমি হামার সাথে যাইবা কপালী?
-এই দেশ থেকে হয়তো ভিনদেশ অনেক ভালো,মাইয়াগো এতো তাচ্ছিল্য পাইতে হয়না…
-হামি বুঝি নাই কপালী
-নাহ কিছুনা,কবে যাবেন?
-টুমার সাথে যতদিন থাকা যায়?
-কেনো আমি কি যে আমার সাথে থাকবে হবে?
-ইউ আর এ ফেইরি কপালী..
-হাহাহাহাহা হয়তো আপনার জন্য,বাপের কাছে ত একটা আগাছা আমি।
– টুমার বাড়ি কোথায় কপালী??
-ময়মনসিংহ,চিনেন?
-নাহ হামি ত বাংলাডেশ এ ফাস্ট আসিয়াছি..
টুমার বাড়ি নিবা?
-আমার আর বাড়ি..হাহাহাহহহহহ..আমি ত তা ছেড়ে এসেছি।

বলেই কপালী চোখ মুছলো।আমার কথা বাদ দেন চলেন ঘুরি কপালী বললো।তারা উঠে পাহাড় এ হাটতে লাগলো। একটা সময় ইন্তানো কপালীর হাতে ধরলো, কপালী নিজের অজান্তেই হাতটা শক্ত করে ধরলো।
তারা হাটতে লাগলো..

(চলবে)

কপালী (পর্ব-৩)

কপালী (পর্ব-২)

কপালী (পর্ব-১)

এই বিভাগের আরো নিউজ

জীবনের শেষ সময়ে চলে গেছি..!
বহুরূপী
গল্প : প্রাণাত্যয় (২য় পর্ব)
একবিংশ শতাব্দীর এক হতাশা
গল্প : প্রাণাত্যয় (১ম পর্ব)
মানবতার বাজার (পর্ব ১)
আবেগ
কপালী (পর্ব-৩)

আজকের সর্বশেষ সব খবর