দেশে করোনাভাইরাসের ভারতের ডাবল মিউট্যান্ট ধরা পরার পর দিন দেশবাসীকে নিজের ও পরিবারের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। হুড়োহুড়ি করে বাড়ি না গিয়ে সবাইকে নিজ নিজ জায়গায় ঈদ উদযাপনের আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

রোববার পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের অবশিষ্ট মূল অধিবাসী এবং ক্ষতিগ্রস্ত মোট ১ হাজার ৪৪০ জনের মধ্যে প্লট বরাদ্দ পত্র প্রদান অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত এ আহ্বান জানান সরকার প্রধান।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমি দেশবাসীর জন্য বলছি, আপনারা একটু ধৈর্য্য ধরুন এবং নিজের ভালো চিন্তা করেন। সেই সঙ্গে পরিবারের ভালো চিন্তা করেন। করোনাভাইরাসের সময় আপনারা একটু মাস্ক পরে থাকবেন, সাবধানে থাকবেন। কারণ আবার নতুন একটা ভাইরাস এসেছে। এটা আরও বেশি ক্ষতিকারক, যাকে ধরে সাথে সাথে মৃত্যু হয়। এজন্য আপনি নিজে সুরক্ষিত থাকেন, অপরকে সুরক্ষা দেন।

‘আমি জানি ঈদের সময় মানুষ পাগল হয়ে গ্রামে ছুটছে। কিন্তু এই যে আপনারা একসঙ্গে যাচ্ছেন। এই চলার পথে ফেরিতে হোক, গাড়িতে হোক যেখানেই হোক, কার যে করোনা ভাইরাস আছে আপনি জানেন না। কিন্তু আপনি সেটা বয়ে নিয়ে যাচ্ছেন আপনার পরিবারের কাছে। মা, বাবা, দাদা, দাদী, ভাই, বোন আপনি কিন্তু তাকেও সংক্রমিত করছেন, তার জীবনটাও মৃত্যু ঝুঁকিতে ফেলে দেবেন।’

সকল বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে ঈদ উপলক্ষে বাড়ি ফিরছে মানুষ। এতে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কা আরও বাড়ছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘একটা ঈদে কোথাও না গিয়ে নিজের ঘরে থাকলে কী ক্ষতিটা হয়। কাজেই আপনারা ছোটাছুটি না করে যে যেখানে আছেন সে সেখানেই থাকেন, ওখানেই নিজের মতো করে ঈদটা উদযাপন করেন।

‘এখন রমজান মাস, আমরা রোজা রাখছি, আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের কাছে দোয়া করেন যেন এই করোনার হাত থেকে আমাদের দেশ যেন মুক্তি পায়। দেশের মানুষ যেন মুক্তি পায়। আর যেন প্রাণহানি না হয়।’