চলমান মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন প্রায় ৭ হাজার মানুষ। এ সময়ের মধ্যে সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে ব্রাজিলে। এছাড়া দৈনিক মৃত্যুতে ভারত রয়েছে দ্বিতীয় অবস্থানেই। এতে বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৮ কোটি ৪২ লাখে। এছাড়া মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৩৯ লাখ ৮৬ হাজার।

রোববার (৪ জুলাই) সকাল সাড়ে সাতটার দিকে করোনা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারস থেকে পাওয়া সর্বশেষ তথ্যানুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৬ হাজার ৯৭৩ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় মৃত্যু কমেছে ১২০০ এর বেশি। এতে বিশ্বজুড়ে মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৩৯ লাখ ৮৬ হাজার ৮৮৩ জনে।

একই সময়ের মধ্যে ভাইরাসটিতে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ৭৪ হাজার ৩৭২ জন। অর্থাৎ আগের দিনের তুলনায় নতুন শনাক্ত রোগীর সংখ্যা কমেছে প্রায় ৫৭ হাজার। এতে মহামারির শুরু থেকে ভাইরাসে আক্রান্ত মোট রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ৪২ লাখ ১৪ হাজার ১০৫ জনে।

করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩ কোটি ৪৫ লাখ ৮৮ হাজার ১৩৫ জন করোনায় আক্রান্ত এবং ৬ লাখ ২১ হাজার ২৫৫ জন মারা গেছেন। ব্রাজিল করোনায় আক্রান্তের দিক থেকে তৃতীয় ও মৃত্যুর সংখ্যায় তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ১ হাজার ৬৩১ জন এবং নতুন করে করোনায় আক্রান্ত হয়েছে ৫৪ হাজার ৫৫৬ জন। মহামারির শুরু থেকে দেশটিতে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা এক কোটি ৮৭ লাখ ৪২ হাজার ২৫ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ৬৯৯ জনের।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্তের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যার তালিকায় দেশটির অবস্থান তৃতীয়। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ৯৪৭ জন। দেশটিতে মোট আক্রান্ত ৩ কোটি ৫ লাখ ৪৪ হাজার ৪৮৫ জন এবং মারা গেছে ৪ লাখ ২ হাজার ১৫ জন।

এছাড়া এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে ৫৭ লাখ ৮৩ হাজার ৬৫৪ জন, রাশিয়ায় ৫৫ লাখ ৮৫ হাজার ৭৯৯ জন, যুক্তরাজ্যে ৪৮ লাখ ৭৯ হাজার ৬১৬ জন, ইতালিতে ৪২ লাখ ৬২ হাজার ৫১১ জন, তুরস্কে ৫৪ লাখ ৪০ হাজার ৩৬৮ জন, স্পেনে ৩৮ লাখ ৩৩ হাজার ৮৬৮ জন, জার্মানিতে ৩৭ লাখ ৩৮ হাজার ৪০ জন এবং মেক্সিকোতে ২৫ লাখ ৩১ হাজার ২২৯ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে।

অন্যদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ফ্রান্সে এক লাখ ১১ হাজার ১৫২ জন, রাশিয়ায় এক লাখ ৩৭ হাজার ২৬২ জন, যুক্তরাজ্যে এক লাখ ২৮ হাজার ২০৭ জন, ইতালিতে এক লাখ ২৭ হাজার ৬৩৭ জন, তুরস্কে ৪৯ হাজার ৮৭৪ জন, স্পেনে ৮০ হাজার ৯১১ জন, জার্মানিতে ৯১ হাজার ৫৮৩ জন এবং মেক্সিকোতে ২ লাখ ৩৩ হাজার ৪২৫ জন মারা গেছে।