গাজীপুরের এক নারী কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে তার বিউটি পার্লারের এক কিশোরী কর্মীকে বাসায় আটকে রেখে যৌন ব্যবসায় বাধ্য করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এ ঘটনায় ওই কিশোরী মঙ্গলবার দুপুরে গাজীপুর মেট্রোপলিটন বাসন থানায় মামলা করেছে।

এতে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ১৬, ১৭ ও ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর রোকছানা আহমেদ রোজী ছাড়াও নুরুল হক নামের একজনকে আসামি করা হয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে আরও দুই-তিন জনকে।

এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, চার মাস আগে মোটা অঙ্কের বেতনের আশ্বাস দিয়ে কাউন্সিলর রোজী তার বিউটি পার্লারে ওই কিশোরীকে চাকরি দেন। পরে বাসন থানার নলজানী গ্রেটওয়াল সিটিতে কাউন্সিলরের ভাড়া বাসায় নিয়ে যান। সেখানে গৃহকর্মীর কাজ করাতেন। ১৩ ও ১৫ ফেব্রুয়ারি ওই ভাড়া বাসায় খদ্দেরের সঙ্গে কিশোরীকে যৌনকর্মে বাধ্য করেন। নারী কাউন্সিলর তাকে সেখানে আটকে রেখে নানাভাবে ভয় দেখাতেন। তবে একপর্যায়ে কৌশলে সে পালিয়ে থানায় গিয়ে মামলা করে।

মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে কাউন্সিলর রোকছানা আহমেদ রোজী বলেন তিনি এ বিষয়ে অবগত নন।

জানতে চাইলে বাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. কামরুল ফারুক বলেন, নারী কাউন্সিলর রোজীসহ দুই জনের নামে মামলা হয়েছে। চান্দনা চৌরাস্তা এলাকায় রহমান শপিংমলে নারী কাউন্সিলরের মালিকানাধীন আনন্দ বিউটি পার্লারের আড়ালে দীর্ঘদিন ধরে যৌন ব্যবসা চালানো হচ্ছে বলেও ওই কিশোরীর অভিযোগ।

তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে।