কুশিয়ারা নদীর আকস্মিক ভাঙ্গনের দেখা দিয়েছে। বালাগঞ্জ-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কের আমজুর এলাকায় প্রায় ৪৫ মিটার অংশ সম্পূর্ণ ধ্বসে পড়েছে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে এ ভয়াবহ ভাঙ্গনের দেখা দেয়। ধ্বসে পড়ার পর থেকে সড়কের ওই অংশে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

বালাগঞ্জের পূর্ব গৌরীপুর ইউনিয়নের আমজুর এলাকায় গত কয়েকদিন যাবত সড়কের ওই অংশে ফাটল সৃষ্টি হয়েছে। সর্বশেষ গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সড়কের প্রায় ৪৫ মিটার অংশ কুশিয়ারা নদীতে সম্পূর্ণ ধ্বসে পড়েছে। বর্তমানে যানবাহন ও পথচারীদের জন্য সড়কের ওই অংশ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। অবশ্য যানবাহন চলাচলের জন্য স্থানীয় দূরবর্তী জমিতে বিকল্প ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

ঘটনার পর সংবাদ পেয়ে বুধবার (২০ জানুয়ারি) সকালে পানি উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শহীদুজ্জামান সরকার, উপ সহকারী প্রকৌশল গোলাম বারী, বালাগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার দেবাংশু কুমার সিংহ, বালাগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী এএসএমজি কিবরিয়া ভাঙ্গন কবলিত সড়ক পরিদর্শন করেছেন।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শহীদুজ্জামান সরকার বলেন, সড়কের পাশ্ববর্তী এলাকায় বাধ নির্মাণের ব্যবস্থা নেয়া হবে। এছাড়া সুরমা ও কুশিয়ারা নদীর তীর সংরক্ষণ ও পুনর্বাসনের জন্য একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ৩ হাজার ৬শ’ কোটি টাকার এ প্রস্তাবিত প্রকল্প একনেকে পাসের অপেক্ষায় আছে।

এ ব্যাপারে বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর বলেন, উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট সকল দফতরে ই-মেইল প্রেরণ করা হয়েছে। সিলেট-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরীর প্রচেষ্টায় কুশিয়ারা নদীর তীর সংরক্ষণ ও পুনর্বাসনে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে।