কুয়েতের আবদালি এলাকায় একটি কৃষি খামারে আগুন লেগে তিন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে তিনজনই সিলেটের। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন।

শনিবার স্থানীয় সময় রাত ১টার দিকে কৃষিকাজে নিয়োজিত প্রায় ২০ বাংলাদেশির আবাসস্থলে এই অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

আহতদের চিকিৎসার জন্য দ্রুত হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মর্মান্তিক দুর্ঘটনার শিকার বাংলাদেশিদের বাড়ি সিলেট অঞ্চলে। খুরশিদ আলী (৪৮) গোয়াইনঘাট। তিনি ২০ বছর ধরে সেখানে কাজ করতেন।

কামাল উদ্দিন (৫১) জেলা মৌলভীবাজার, উপজেলা জুড়ি, গ্রাম মাগুরা। তিনি প্রায় ২ যুগ ধরে একই কোফিলের (মালিক) কাজ করতেন।

মোহাম্মদ ইসলাম (৩২) জেলা সিলেট, কানাইঘাট, গ্রাম বাটিভারা ফইত। তিনি প্রায় ৬ বছর ধরে একই কোফিলের কাজ করতেন।

দুর্ঘটনার শিকার ও প্রত্যক্ষদর্শীরা অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত সম্পর্কে কিছুই বলতে পারছেন না। তবে ধারণা করা হচ্ছে, গ্যাস কিংবা বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হতে পারে।

অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় আহত মোহাম্মদ আলকাছ নামে একজন প্রবাসী বাংলাদেশি স্থানীয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাকিরা চিকিৎসা নিয়ে ঘরে ফিরেছেন।

কুয়েতে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আশিকুজ্জামান ও শ্রম কাউন্সেলর আবুল হুসেন দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। মরদেহ দেশে পাঠানো ও আহতদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন।

অপরদিকে, বাংলাদেশ প্রেসক্লাবের কুয়েত সাধারণ সম্পাদক আ. হ. জুবেদের নেতৃত্বে কুয়েত সিটি থেকে প্রায় দেড়শ’ কিলোমিটার দূরে ঘটনাস্থল সরেজমিনে পরিদর্শন করে সংবাদ সংগ্রহ করেন এবং বাংলাদেশ দূতাবাসসহ বিভিন্ন সংস্থাকে ঘটনা অবহিত করেন।