হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার আন্তজেলা গাড়ি চোর চক্রের সদস্য এবং উপজেলা ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক হৃদয় পাঠান উজ্জ্বলের মুক্তি চেয়ে পোস্টার প্রকাশ করেছে উপজেলা ছাত্রলীগ।

পোস্টার প্রকাশের বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে সমালোচনার মুখে পড়ে ছাত্রলীগ। তবে এ পোস্টারটি ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে প্রকাশ করা হয়নি বলে দাবি সংগঠনটির সভাপতি অনু মোহাম্মদ সুমনের।

বুধবার রাতে উজ্জ্বলের নিঃশর্ত মুক্তি চেয়ে মাধবপুর উপজেলাজুড়ে পোস্টার লাগানো হয়। পোস্টারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, তার ছেলে সজীব ওয়াজেদ জয়ের ছবি এবং মুজিব শতবর্ষের লোগো ব্যবহার করা হয়।

এতে লেখা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ মাধবপুর পৌর শাখার সাবেক সফল সভাপতি ও বর্তমান মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক, তৃণমূল ছাত্র রাজনীতির আইডল, স্লোগান মাস্টার, সুবক্তা ও রাজপথের এক অপরাজেয় ছাত্রনেতা, হৃদয় পাঠান উজ্জ্বলের উপর ঢাকায় করা মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও নিঃশর্ত মুক্তি চাই।

শেষে লেখা হয়- প্রচারে: বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, মাধবপুর উপজেলা শাখা। তবে পোস্টারটি কোন ছাপাখানা থেকে ছাপানো হয়েছে সেটি উল্লেখ করা ছিল না।

পোস্টারটি প্রকাশের পর থেকেই মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগ নিয়ে সমালোচনা শুরু হয়। পাশাপাশি, পোস্টারটির ছবি ফেসবুকে আপলোড করে নানা রকম মন্তব্য করেন অনেকে।

এ ব্যাপারে মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অনু মোহাম্মদ সুমন বলেন, কে বা কারা এ পোস্টার ছাপিয়েছে তা আমরা জানি না। ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে এমন কোন পোস্টার ছাপানো হয়নি। আমি পোস্টার দেখেই ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে জানিয়েছি এটা উপজেলা ছাত্রলীগ করেনি। ২৪ ঘণ্টার ভেতর পোস্টারগুলো না সরানো হলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাড়ি চোরচক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ১৬ মার্চ মাধবপুর থেকে উজ্জ্বলকে আটক করে ঢাকা গোয়েন্দা পুলিশের একটি বিশেষ দল। এ ঘটনায় উজ্জ্বল গাড়ি চোরচক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার বিষয়ে আদালতে স্বীকারোক্তি দেন।

পরদিন দলীয় শৃঙ্খলাভঙ্গের অভিযোগে হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগ উজ্জ্বলকে মাধবপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে অব্যাহতি দেয়। একই অভিযোগে ১৮ মার্চ কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি ও সম্পাদক তাকে বহিষ্কার করেন।