দিনরাত প্রতিবেদক, হবিগঞ্জ : চুনারুঘাট উপজেলার জারুলিয়া গ্রামে বিয়ের দাবীতে প্রেমিক সাগরের বাড়িতে অনশন অব্যাহত রেখেছে প্রেমিকা।

শনিবার বিকেল থেকে ওই প্রেমিকা অনশন শুরু করলেও রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত ভাঙ্গেনি তার অনশন। এমতবস্থায় এ ঘটনায় ওই এলাকায় শুরু হয়েছে তোলপাড়।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় প্রশাসন ও জনপ্রতিনিধিদের সম্বয়ে গঠিত শালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হলেও বিষয়টি সুরাহা হয়নি। প্রেমিক সাগর জারুলিয়া গ্রামের আব্দুন নুর মিয়ার পুত্র। প্রেমিকা শাহজাদা পারভীন কুমিল্লা জেলার মুরাদনগর থানার হীরাপুর গ্রামের রেজাউল করিম হেলাল মিয়ার কন্যা।

অনশনরত প্রেমিকা শাহজাদা পারভীন জানান, তার এক আত্মীয়ের মাধ্যমে প্রেমিক সাগরের সাথে তার পরিচয় হয়। এর পর মোবাইল ফোনে কথাবার্তা হয়। এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে। প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠার পর সে প্রায়ই তার প্রেমিকের ডাকে সাড়া দিয়ে চুনারুঘাট আসে এবং তারা দুইজন বিভিন্ন স্থানে ঘুরাফেরা। এক পর্যায়ে তাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে প্রেমিক সাগর তার সাথে শাররিক সম্পর্ক করে। কিন্তু সম্প্রতি সাগর তার সাথে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয় এবং সাগর তাকে বিয়ে করতে পারবে না বলে জানায়। এরই মধ্যে সাগর অন্য আরেক মেয়েকে বিয়ের করছে বলে খবর পেয়ে সে তার বাড়িতে এসে অনশন শুরু করে। এ খবর শুণে আশপাশের এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে সাগরের বাড়িতে শতশত লোক ভীড় জামায়। খবর পেয়ে চুনারুঘাট থানা পুলিশ স্থানীয়দের সহযোগীতায় উভয় পরিবারের মাধ্যমে বিষয়টি মিমাংসা করার জন্য উদ্দোগ গ্রহন করে। এরই প্রেক্ষিতে রোববার দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত স্থানীয় ইউনিয়ন চেয়ারম্যানসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি সুরাহা করার চেষ্ঠা করলেও তার হয়নি। স্থানীয় একটি সূত্র জানায়, আজ সোমবার বিজয় দিবস হওয়ায় পরদিন মঙ্গলবার বিষয়টি সমাধানের লক্ষ্যে আবারো বৈঠক হবে। অপরদিকে, প্রেমিক সাগর এ ঘটনার পর থেকেই লাপাত্তা রয়েছে।