দিনরাত ডেস্ক : ২০১৯ সালের ৩ জানুয়ারি ইতিহাদ স্টেডিয়ামে ম্যানচেস্টার সিটির কাছে ২-১ গোলে হেরেছিল লিভারপুল। তারপর থেকে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে (ইপিএল) আর কোনো ম্যাচেই হারের মুখ দেখেনি অলরেডরা। ছন্দে থাকা লিভারপুল এবার শেফিল্ড ইউনাইটেডকে ২-০ গোলে হারিয়ে টানা ৩৬৫ দিন লীগে অপরাজিত থাকার কীর্তি গড়ে ফেলেছে।

ইপিএলের চলতি মৌসুমে ৩৭ ম্যাচ খেলা লিভারপুল একটি ম্যাচও হারেনি। লীগের ইতিহাসে মাত্র তৃতীয় দল হিসেবে টানা এক বছর অপরাজিত থাকলো জুর্গেন ক্লপের দল। ২০০৩-০৪ মৌসুমে আর্সেনাল টানা ৪৯ ম্যাচ এবং ২০০৪-০৫ মৌসুমে চেলসি টানা ৪০ ম্যাচ অপরাজিত ছিল।

লিভারপুল আরেকটি নজির গড়েছে। ইপিএলে কোনো মৌসুমে অন্তত ২০ ম্যাচ খেলার পর ম্যানচেস্টার সিটির সমান সর্বোচ্চ ৫৮ পয়েন্টের রেকর্ডে ভাগ বসিয়েছে অলরেডরা। ম্যানসিটি ২০১৭-১৮ মৌসুমে এই কীর্তি গড়েছিল।

বৃহস্পতিবার (২ জানুয়ারি) অ্যানফিল্ডে অনুষ্ঠিত ম্যাচ শুরুর আগে স্বাগতিকরা ধাক্কা খেয়েছিল। ওয়ার্ম আপের সময় ইনজুরিতে পড়ায় একাদশ থেকে শেষ মুহূর্তে ছিটকে যান নাবি কেইটা, তার জায়গায় আসেন জেমস মিলনার।

ম্যাচের ৪ মিনিটেই তিন দশকের খরা কাটিয়ে লীগ শিরোপা জয়ের স্বপ্নে বিভোর লিভারপুল গোল পেয়ে যায়। ভার্জিল ফন ডাইকের নিখুঁত ক্রসে বল পেয়ে তা নিয়ন্ত্রণে নেয়া লেফটব্যাক অ্যান্ড্রু রবার্টসনের পাসে বল পেয়ে ডি বক্সের ভেতর থেকে মিশরীয় ফরোয়ার্ড মোহাম্মদ সালাহ বাঁ পায়ের শটে বল জালে পাঠিয়ে দেন। এবারের ইপিএলে এটি সালাহর দশম গোল।

বিরতির পর ৬৪ মিনিটের মাথায় লিভারপুল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকারের লম্বা পাসে বাঁ প্রান্ত দিয়ে আক্রমণে উঠে সালাহর সঙ্গে বল দেয়া-নেয়া করে শট নেন সেনেগালের ফরোয়ার্ড সাদিও মানে। তার শট প্রতিপক্ষের গোলরক্ষক হেন্ডারসন ফিরিয়ে দিলেও ফিরতি শটে মানে গোল করে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। আসরে এটি তার একাদশ গোল।

২০ ম্যাচে ১৯ জয় ও ১ ড্রয়ে শীর্ষে থাকা লিভারপুলের পয়েন্ট ৫৮। ১৩ পয়েন্ট কম নিয়ে দুইয়ে আছে এক ম্যাচ বেশি খেলা লেস্টার সিটি। তিনে থাকা ম্যানচেস্টার সিটির পয়েন্ট ৪৪। ৩৬ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে আছে চেলসি। পাঁচে থাকা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পয়েন্ট ৩১।