দেশে টিকাদান কার্যক্রমের ইদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বুধবার বিকেলে ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি।

পরে রাজধানীর কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু বেরুনিকা কস্তার শরীরে করোনার টিকা প্রয়োগ করা হয়। আর এর মাধ্যমেই দেশে টিকা প্রদান কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

টিকার জন্য বাছাই করা প্রথম পাঁচ জন হলেন হাসপাতালটির ডায়ালাইসিস ইউনিটের ইনচার্জ ও সিনিয়র স্টাফ নার্স রুনু, চিকিৎসক আহমেদ লুৎফুল মোবেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা, ট্রাফিক পুলিশের মতিঝিল বিভাগের কর্মকর্তা দিদারুল ইসলাম ও ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এম ইমরান হামিদ।

একই দিনে টিকা পাচ্ছেন কুর্মিটোলা হাসপাতালের ফিমেল মেডিসিন ইউনিটের ইনচার্জ ও সিনিয়র স্টাফ নার্স মুন্নি খাতুন এবং একই ইউনিটের নার্স রিনা সরকার।

চিকিৎসকদের মধ্যে টিকা পাচ্ছেন হাসপাতালের কনসালট্যান্ট আল মামুন। প্রথম সাংসদ হিসেবে টিকা নিচ্ছেন সিলেট-৫ আসনের হাফিজ আহমেদ মজুমদার।

এ ছাড়া যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ তারা মিয়া, একুশে পদকপ্রাপ্ত চিকিৎসক ও বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. অরুপ রতন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালের মেডিক্যাল অফিসার ডা. আফরোজা জাহিন এবং একই হাসপাতালের সিনিয়র স্টাফ নার্স মোশাররফ হোসেনকে টিকা দেয়া হবে।

সব মিলিয়ে ২৫ জনকে আজ করোনার টিকা দেয়া হচ্ছে।