দিনরাত ডেস্ক : ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট মহাসড়কে যান চলাচল শুরু শুরু হয়েছে। বুধবার দুপুর ২টার পর পরিবহণ শ্রমিকরা তাদের অবরোধ তুলে নেয়। এর আগে ভোর ৬টা থেকে ঢাকা-সিলেট-চট্টগ্রাম মহাসড়ক প্রায় ৮ ঘন্টা অবরোধ করে রাখে শ্রমিকরা।

দুপুরের পর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড থেকে শ্রমিকরা সরে যেতে শুরু করলে ঢাকা-সিলেট ও ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়। তবে যান চলাচল শুরু হলেও তীব্র সঙ্কট রয়েছে গণপরিবহনের। হাজার হাজার সাধারণ মানুষকে গণপরিবহনের জন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে।

সাইনবোর্ডে অবরোধকারীরা জানান, তারা তাদের দাবির প্রতি অবিচল। কিন্তু বুধবার মন্ত্রীদের সঙ্গে শ্রমিক নেতাদের বৈঠকের কারণে আপাতত সাময়িকভাবে অবরোধ প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে। দাবি না মানলে প্রয়োজনে আবারও অবরোধ করা হবে।

এর আগে নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকাগামী সকল পরিবহন বুধবার (২০ নভেম্বর) সকাল থেকে বন্ধ ছিল। এতে করে ভোগান্তিতে পড়েন সাধারণ যাত্রীরা। ঘণ্টার পর ঘণ্টা বাসের জন্য দাঁড়িয়ে থেকেও না পেয়ে হাঁটতে শুরু করেন অনেকে। ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের সাইনবোর্ড এলাকায় এলোপাতাড়ি যানবাহন রেখে অবরোধ করে রাখে পরিবহন শ্রমিকরা। ফলে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কেও যানচলাচল বন্ধ ছিল।

নতুন সড়ক পরিবহন আইন স্থগিত রাখাসহ ৯ দফা দাবিতে বুধবার (২০ নভেম্বর) ভোর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য কর্মবিরতি ডাকে বাংলাদেশ ট্রাক-কাভার্ডভ্যান পণ্য পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদ। ওই কর্মবিরতিতে সংহতি প্রকাশ করে সারাদেশের মতো নারায়ণগঞ্জেও সকল ধরনের গণপরিবহন বন্ধ ছিল।