দিনরাত প্রতিবেদক, হবিগঞ্জ : জমিয়তের কেন্দ্রীয় সিনিয়র সহ-সভাপতি, জামিয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া উমেদনগর মাদরাসার মুহতামিম ও শায়খুল হাদীস আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জীর জানাযায় লাখো মুসল্লির সমাগম ঘটেছে। শুধু জেলাবাসী নন, সিলেট বিভাগসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মুসল্লিরা জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

সোমবার সকাল ১০টায় হবিগঞ্জ পৌর এলাকার জামিয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া উমেদনগন মাদরাসা মাঠে তাঁর জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় অংশ নিতে ভোরবেলা থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মাদরাসা মাঠে জরো হতে থাকেন মুসল্লিগণ। মাদরাসা মাঠে জায়গা না হওয়ায় হবিগঞ্জ-নবীগঞ্জ সড়কের প্রায় এক কিলোমিটার জায়গাজুড়ে দাড়িয়ে মুসল্লিরা জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।

পরে শ্রদ্ধা, ভালোবাসা আর চোখের জলে শেষ বিদায় জানান শায়খুল হাদীস আল্লামা তাফাজ্জুল হক হবিগঞ্জীকে। জানাযা শেষে জামিয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া উমেদনগর মাদরাসা মসজিদের পাশে চির নিদ্রায় সায়িত করা হয় দেশবরেণ্য এই ইসলামি চিন্তাবিধকে।

এরআগে, রোববার (৫ জানুয়ারি) বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে দেশের বিশিষ্ট এ হাদিস বিশারদ ও রাজনীতিবিদ ইন্তেকাল করেন। এক সপ্তাহ আগে সিলেটের জামেয়া তাওয়াক্কুলিয়া রেঙ্গার শতবার্ষিকী ও দস্তারবন্দী সম্মেলনের পর থেকে তিনি অসুস্থ হয়ে পরেন। রোববার অসুস্থতা বেড়ে যাওয়ায় হবিগঞ্জ থেকে সিলেট হাসপাতালে নেওয়ার পথে শেরপুর নামক স্থানে তিনি ইন্তেকাল করেন।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। প্রায় ৫৫ বছর যাবত হাদিসের দরস দিয়েছেন সিলেটের জামিয়া ইসলামিয়া আরাবিয়া উমেদনগর মাদরাসায়। ঐতিহ্যবাহী দ্বীনী পরিবারে তার জন্ম। তার পিতা ছিলেন একজন বিজ্ঞ আলেম ও সমাজ সংস্কারক।