নাসির হোসেন ও তামিমা সুলতানা তাম্মির বৈবাহিক জীবনের শুরুতেই বড় ঝক্কিঝামেলা সামলাতে হচ্ছে। তারা নিজেদের দিক থেকে কোনো ভুল করেননি বলে স্পষ্ট করেছেন। তবুও তামিমার দিকে কেউ আঙুল তুললে তাকে ছেড়ে কথা বলবেন নাসির।

বেশ কয়েকমাস আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নাসির হোসেন একটি মেয়ের সাথে ছবি পোস্ট করেছিলেন। তখন তার পরিচয় কেউ জানতো না। নাসির প্রথমে জানিয়েছিলেন তারা বন্ধু। তারপরে বিভিন্ন জায়গায় তিনি স্বীকার করেছেন ওই মেয়েকে তিনি করবেন। অবশেষে ২০২১ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি সেই মেয়ের পরিচয় জানা যায়। তিনি নাসিরের বর্তমান স্ত্রী তামিমা। কিন্তু তাদের বৈবাহিক জীবনের শুরুটা মোটেও সুখকর হলো না।

তামিমা ও রাকিবের বৈবাহিক জীবনের শুরুতেই বাগড়া দিয়ে বসেন রাকিব হাসান, যিনি তামিমার প্রাক্তন স্বামী। যদিও রাকিব দাবি করছেন তাদের তালাক হয়নি এবং রাকিবই তামিমার বর্তমান স্বামী। এদিকে তালাকনামা নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হয়ে তামিমা বলেছেন ২০১৭ সালেই তাদের তালাক হয়ে গিয়েছে।

২০২১ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পারিবারিকভাবে তামিমা ও নাসিরের কাবিন করা হয়। তারপরে জাঁকজমক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে করা হয় গায়ে হলুদ ও বিবাহোত্তর সংবর্ধনা। এতদিন চুপ থাকলেও বিবাহত্তোর সংবর্ধনার আগে হঠাৎ করেই আগমন ঘটে রাকিবের। তারপর তিনি মামলাও করেছেন।

রাকিব দাবি করছেন তামিমা তার স্ত্রী এখনো। অপরদিকে, তামিমা ও নাসির দাবি করছেন রাকিবের সাথে তামিমার তালাক হয়ে গিয়েছে এবং এখন তামিমা নাসিরের আইনসম্মত স্ত্রী। কিন্তু সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও লোকমুখে তাদের নামে নানান আপত্তিকর কথা ভেসে বেড়াচ্ছে। তাই তামিমাকে নিয়ে কেউ খারাপ কথা ছড়ালে তার নামে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন।

নাসির বলেন, ‘এতদিন সে শুধু তামিমা ছিল, এখন তামিমা হোসেন। আমি চাইব না আমার বউয়ের দিকে কেউ আঙুল তুলে কথা বলুক। যারাই যেখান থেকে কথা বলতেছে না কেন, তাঁদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিব।