স্কুল খোলার পর দশম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের ক্লাস হবে সপ্তাহে প্রতিদিন। তবে প্রাথমিক পর্যায়ের ক্লাসগুলো হতে পারে সপ্তাহে একদিন।

জাতীয় সংসদের অধিবেশনে রোববার এ কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ড সংশোধন বিল- ২০২১ নিয়ে জনমত যাচাই-বাছাইয়ের প্রস্তাবে এমপিদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা একটি নির্দেশনা দিয়েছি। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার যে প্রাক-প্রস্তুতি সেটি সম্পূর্ণ করতে হবে।

‘স্বাস্থ্যবিধি মেনে ক্লাস খুলে দেয়ার জন্য যা যা প্রস্তুতির প্রয়োজন, সেই সমস্ত প্রস্তুতি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ৪ ফেব্রুয়ারির মধ্যে নিয়ে নেবে। তারপর আমরা অবস্থা বুঝে এবং আমাদের জাতীয় পরামর্শক কমিটির পরামর্শ অনুযায়ী কোন দিন থেকে খুলব সেটি ঘোষণা করব।’

ক্লাস কীভাবে হবে তার বর্ণনায় শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘যখন খুলব যাদের এসএসসি এবং এইচএসসি আছে ২০২১ সালে তাদের সংক্ষিপ্ত সিলেবাসের ওপর পরীক্ষা হবে। সেই ক্ষেত্রে দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীরা তারা প্রতিদিন ক্লাস করবে।

‘আর অন্যান্য ক্লাসগুলো প্রাথমিক পর্যায়ে সপ্তাহে হয়তো একদিন করে আসবে এবং সেই দিন সারা সপ্তাহের কাজ নিয়ে যাবে। আবার পরের সপ্তাহে এসে সেই কাজ নিয়ে শিক্ষকদের সাথে আলাপ-আলোচনা করবে।’

শিক্ষার্থীদের আসন সংকট নিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘অনেক ক্ষেত্রেই গাদাগাদি করে আমাদের শিক্ষার্থীদের বসতে হয়। সেটি এই মহামারির মধ্যে তো আমরা বসাতে পারব না। তাদের সেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই বসতে হবে।

‘সে ক্ষেত্রে সবাইকে একসঙ্গে আনার সুযোগই থাকবে না। কাজেই আমরা দশম এবং দ্বাদশকে নিয়ে আসব তাদের পরীক্ষা দেবার স্বার্থে। বাকিদের প্রাথমিক পর্যায়ে সীমিত পরিসরে এই কারণেই বলছি, তারা একদিন করে আসবে।’

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কা পুরোপুরি কেটে যাওয়ার পর পুরোদমে ক্লাস শুরু করার চিন্তা-ভাবনা আছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।