হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণের আগের রাতে (১৫ জানুয়ারি) আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থী গোলাম রসুল চৌধুরী রাহেল ও বিএনপি প্রার্থী ছাবির আহমেদ চৌধুরীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এ সময় আওয়ামী লীগকর্মীর ছরিকাঘাতে গুরুত্বর আহত হন এক বিএনপি কর্মী। নাড়ি-ভুড়ি বের হয়ে যাওয়ায় আশঙ্কাজনকভাবে তাকে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়। এখনও তিনি সেখানে চিকিৎসাধিন রয়েছেন।

চিকিৎসকরা জানিয়েছে, তার সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে। তবে এখনও কাটেনি শঙ্কা।

আহত বিএনপিকর্মীর নাম শফিক মিয়া চৌধুরী (৩২)। তিনি চরগাঁও গ্রামের মন্নাফ মিয়া চৌধুরীর ছেলে ও বিজয়ী প্রার্থী ছাবির আহমেদ চৌধুরীর চাচাতো ভাই।

এ ব্যাপারে ছাবির আহমদ চৌধুরী দিনরাতনিউজকে বলেন, ‘আমি গয়াহরি সেন্টারে এজেন্ট ফরম বুঝিয়ে দিতে যাই। ওই সময় গ্রামের রবিন্দ্র দাশ তার বাড়িতে সংক্রান্তির পিঠা খেতে আমন্ত্রণ জানান। পিঠা খেয়ে বাড়ি থেকে বের হতেই আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী গোলাম রসুল চৌধুরী রাহেলের ভাই শাহেল চৌধুরী আমার গতিরোধ করে। এরপর আওয়ামী লীগ প্রার্থী রাহেল চৌধুরীও সেখানে উপস্থিত হন।

এক পর্যায়ে রাহেল চৌধুরীর এক কর্মী আমার ভাইকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করলে তার পেট চিরে নাড়িভুঁড়ি বের হয়ে আসে।’

তিনি বলেন, ‘তার সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে। তবে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন এখনও শঙ্কা কাটেনি।’