নবীগঞ্জে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে প্রতিবেশী দুই সন্তানের জনকের বিরুদ্ধে। হত্যার হুমকি দিয়ে দিনের পর দিন ধর্ষণের কারণে ওই তরুণী এখনও ৮ মাসের অন্তস্বত্বা হয়ে পড়েছেন। এ ব্যাপারে প্রতিবেশি জসিম মিয়াকে (৩৮) অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগ দায়ের করেছেন। পাশাপাশি তিনি স্ত্রীর মর্যাদা ও অনাগত সন্তানের স্বীকৃতি চান।

গত মঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারী) হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অভিযোগটি দায়ের করেন।

অভিযোগকারী তরুণী নবীগঞ্জ উপজেলার বাউসা গ্রামের জনৈক ব্যক্তির মেয়ে।

অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, গত বছরের ১ এপ্রিল রাতে হঠাৎ ওই তরুণীর ঘরে প্রবেশ করেন প্রতিবেশি দুই সন্তানের জনক জসিম মিয়া। এ সময় জসিম মিয়া জোরপূর্বক ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন। এরপর থেকে বিভিন্ন ভয়-ভীতি দেখিয়ে জসিম মিয়া দিনের পর দিন ধর্ষণ করে আসেন। এক পর্যায়ে ওই তরুণী অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের লোকজন তাকে হাসপাতালে নিয়ে যান। এ সময় চিকিৎসক জানান তিনি অন্তস্বত্বা।

এ সময় জসিম মিয়া বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে বিষয়টি কাউকে না জানাতে বলে। কিন্তু এরপর ধর্ষণের শিকার তরুণী জসিম মিয়াকে বিয়ের জন্য বারবার চাপ দিলে তিনি এড়িয়ে যান। বর্তমানে সে ৮ মাসের অন্তস্বত্বা।

এতে নিরুপায় হয়ে গত ৭ ফেব্রুয়ারি ওই তরুণী হবিগঞ্জ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালে অভিযোগটি দায়ের করেন। পাশাপাশি তিনি স্ত্রীর মর্যাদা ও অনাগত সন্তানের স্বীকৃতি চান।

এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ থানার ওসি তদন্ত বলেন, ‘ওসি স্যার একটি মামলার স্বাক্ষি দিতে সিলেট আছেন। তিনি বিষয়টি বলতে পারবেন।’