দিনরাত প্রতিবেদক, হবিগঞ্জ : বিএনপির দুঃসময়ে ক্ষমতার লোভে কমিটি নিয়ে খেলায় মেতেছেন নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। কোন কমিটি ঘোষণা না দেওয়ার পরও নিজেদের মতো করে পৃথক তিনটি কমিটি ঘোষণার প্রচারণা চালিয়ে গুজব ছড়াচ্ছেন তারা। বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন হবিগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

জানা যায়, কেন্দ্রীয় বা জেলা কমিটির কোন ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে শুক্রবার রাতে বর্ধিত সভা করেন নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক রায়েস চৌধুরী। পরে রাতেই তার অনুসারিরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে রায়েস চৌধুরী সভাপতি, ফুয়াদ হাসান রাজন সাধারণ সম্পাদক এবং হুমায়ুন আহমেদকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা দেয়া হয়েছে বলে প্রচারণা চালায়।

পরে শনিবার দুপুরে জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জহিরুল ইসলাম সুহেল সভাপতি, কপিল মিয়া সাধারণ সম্পাদক এবং হুমায়ুন আহমেদ সাংগঠনিক দাবি করে তাদের অনুসারিরা ফেসবুকে প্রচারণা চালায়। এমনকি তারা শহরের বিভিন্ন সড়কে আনন্দ মিছিলও করে। এর কিছুক্ষণ পরই নবীগঞ্জ কলেজ ছাত্রদলের আহবায়ক অলিউর রহমান অলি সভাপতি, শেখ সিপন আহমেদ সাধারণ সম্পাদক ও মিটন আহমেদ সাংগঠনিক করে উপজেলা ছাত্রদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে বলে ফেসবুকে প্রচারণা চালায় ছাত্রদলের আরেকটি অংশ।

এদিকে, বিষয়টি নিয়ে তিনটি গ্রুপের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় সংঘর্ষের আশংঙ্কা করছেন বিএনপি নেতাকর্মীরা। আবার বিষয়টি নিয়ে চলছে আলোচনা সমালোচনাও। তবে সবচেয়ে বেশি আলোচনা চলছে ছাত্রদল নেতাকর্মীদের কর্মকাণ্ড নিয়ে। বিএনপির দুঃসময়ে ক্ষমতার দ্বন্দ্বে মেতে উঠা নেতার্মীদের প্রতি ধিক্কার ও ক্ষোভ প্রকাশ করছেন সর্বস্তরের মানুষ।

তবে বেশি আলোচিত হয়ে উঠেছেন নবীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক রায়েস চৌধুরী। নেতাকর্মীরা বলছেন- তিনিই প্রথম এই গুজবের সৃষ্টি করেছেন। তাই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন অনেকে।

এ ব্যাপারে জানতে তিন গ্রুপের নেতাদের সাথে মোবাইলফোনে বারবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তারা কেউই ফোন রিসিভ করছেন না।

জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী বলেন- ‘ছাত্রদলের কমিটি দিতে কেন্দ্র থেকে নিষেধ করেছে। তাই নবীগঞ্জ ছাত্রদলের কোন কমিটি দেয়া হয়নি। কিন্তু উপজেলা ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা অযথাই গুজব ছড়াচ্ছেন।’

তিনি বলেন- যারা দলের দুঃসময়ে ক্ষমতার দ্বন্দ্বে গুজব ছড়াচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’