ভারতের পশ্চিমবঙ্গজুড়ে চলছে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি। দলীয় প্রচারণার জন্য বুধবার রাতে মুর্শিদাবাদ জেলায় যান রাজ্যের শ্রম প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন। সেখানে রাতে তার ওপর বোমা হামলা হয়েছে। এ সময় একজন নিহত এবং ওই প্রতিমন্ত্রীসহ ২৬ জন আহত হয়েছেন। এর মধ্যে গুরুতর আহত হয়েছেন ৭ জন।

আহত প্রতিমন্ত্রীকে কলকাতার পিজি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে হামলাকারীদের কাউকে পুলিশ এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

রাত পৌনে ১০টার দিকে প্রতিমন্ত্রী জাকির হোসেন কলকাতায় দলীয় সভায় যোগ দিতে মুর্শিদাবাদের নিমতিতা রেলস্টেশনে আসেন। সেখান থেকে তিস্তা-তোর্ষা বিশেষ এক্সপ্রেস ট্রেনে করে কলকাতায় আসার কথা ছিল তার। কিন্তু স্টেশনটির ২ নম্বর প্ল্যাটফর্মে নামার পরপরই তাঁকে লক্ষ্য করে বোমা ছোড়ে হামলাকারীরা। এ সময় সঙ্গে ছিলেন তার বিড়ি কারখানার ৬০ জন কর্মী। বোমা বিস্ফোরণের সঙ্গে সঙ্গে স্টেশন এলাকা ধোঁয়ায় ছেয়ে যায়। প্রচণ্ড শব্দে স্টেশনে অপেক্ষমাণ যাত্রীরা ছুটতে থাকেন। এ সময় অনেকে আহত হন। প্ল্যাটফর্মে পড়ে থাকতে দেখা যায় তাদের।

জঙ্গিপুরের পুলিশ সুপার ওয়াই রঘুবংশী বলেছেন, ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। এখনো কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি। মন্ত্রীর ওপর হামলার এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন তৃণমূল, বিজেপি ও কংগ্রেসের নেতারা। তৃণমূলের মুর্শিদাবাদ জেলা শাখার সভাপতি আবু তাহের বলেছেন, ‘এটা একটা পরিকল্পিত হামলা। এই হামলার পেছনে যাঁরাই থাকুক, পুলিশ তাঁদের খুঁজে বের করে কঠোর শাস্তি দিক। এটাই আমাদের দাবি। বিজেপির পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, এ ঘটনার পর এটা পরিষ্কার হয়ে গেছে, এই রাজ্যের মন্ত্রীরাও সুরক্ষিত নন। কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি সাংসদ অধীর চৌধুরী মন্ত্রীর ওপর এই হামলার নিন্দা করে বলেছেন, এই ঘটনার পেছনে কারা আছে, তা অবশ্যই তদন্ত করে বের করা হোক।