হবিগঞ্জ শহরের পুরাতন খোয়াই নদীর পরিত্যক্ত অংশ নিয়ে প্রস্তাবিত সৌন্দর্য্যবর্ধনের মেগা প্রকল্প ‘বাতিল’ হবার পর এবার আসছে মিনি প্রকল্প। এ প্রকল্পের আওতায় থাকবে খোয়াই নদী খনন ও ‘ওয়াকওয়ে’ সহ নানা সৌন্দর্য্যবর্ধনের কাজ।

রোববার (১৮ এপ্রিল) বিকেলে সম্ভাব্য প্রকল্প এলাকা পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান ও পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহ নেওয়াজ তালুকদারসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সূত্রে জানা যায়, জেলা সদর আধুনিক হাসপাতাল এলাকা থেকে সিনেমা হল এলাকা পর্যন্ত প্রায় ১ কিলো মিটার এলাকাজুড়ে এ প্রকল্পের সম্ভাব্য সীমানা নির্ধারণ করা হয়েছে। প্রকল্প অনুযায়ি পরিত্যক্ত খোয়াই নদী খনন ও ‘ওয়াকওয়ে’ সহ নানা সৌন্দর্য্যবর্ধনের কাজ নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে নদীর দুইপাশ নয়, শুধুমাত্র পূর্ব পাশেই এই সৌন্দর্য্যবর্ধনের কাজ হবে। প্রকল্পে সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয়েছে ২০ থেকে ২৫ কোটি টাকা। জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে এ প্রকল্পের প্রস্তাবনা তৈরী করবে পানি উন্নয়ন বোর্ড।

এ বিষয়ে পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহ নেওয়াজ তালুকদার বলেন,‘আগের কল্পটি পরিকল্পনা কমিশন বাতিল করেছে। বর্তমানে খনন ও সৌন্দর্য্যবর্ধনের নতুন প্রকল্পের চিন্তা-ভাবনা চলছে। পরিকল্পনা কমিশনের সম্মতি পেলেই প্রকল্পের প্রস্তাবনা তৈরী করা হবে। আমরা আশাবাদি এ প্রকল্পের সম্মতি পাওয়া যাবে।’

তিনি বলেন, ‘ধর্মীয় ও সরকারী স্থাপনা এবং আইনী জটিলতাসহ নানা বাধার কারণে পুরাতন খোয়াই নদীর পুরো অংশ উদ্ধার করা কঠিন। মূলত ওপেন অংশে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা সহজ। এজন্যই নতুন করে এ প্রকল্পের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।’