দিনরাত ডেস্ক : পালং শাক কমবেশি প্রায় সবারই প্রিয়। আমাদের দেশে সব ঋতুতেই পাওয়া যায় এই শাক। এই শাক রান্না করে ঝোল স্যুপের মতো অনেকেই খায়। আবার অনেকে ভাজি হিসেবে খায়। এমনকি রান্না করেও মাছের সঙ্গে খাওয়া যায় সহজেই।

তবে সুইডেনের লিংকোপিং বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় বলা হয়েছে রান্না নয়, পালং শাক সবচেয়ে বেশী পুষ্টিকর কাঁচা অবস্থায় খেলে। কাঁচা পালং শাক খেলে এর পুষ্টিমান বজিয়ে থাকে। নাহলে পালং শাকের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট লুটেইন নষ্ট হয়ে যায়।

সবুজ শাকসবজিতে প্রচুর লুটেইন থাকে। তবে সবচাইতে বেশী থাকে পালং শাকে। লুটেইন চর্বি জমে রক্তনালী বন্ধ হওয়ার ঝুঁকি কমায়। সেই সঙ্গে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।

গবেষকরা বিভিন্ন তাপমাত্রায় ভেজে, সেদ্ধ করে এবং ভাপে পালং শাক রান্না করে দেখেছেন যে, স্বাভাবিক তাপমাত্রাতেই পুষ্টিগুণ বেশী থাকে। বেশী তাপে রান্না করলে অন্য অনেক পুষ্টি উপাদানের মতো লুটেইনও নষ্ট হয়ে যায়। বেশী তাপে ফ্রাই প্যানে ভাজি করলে মাত্র দুই মিনিটেই লুটেইন একেবারে কমে যায়।

তাই গবেষকরা পরামর্শ দিয়েছেন রান্না না করে পালং শাক খেতে। স্মুদি তৈরি করে অথবা সালাদে খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তারা। সঙ্গে ক্রিম, দুধ অথবা দই যোগ করে নিলে খাবারটা আরও পুষ্টিকর হবে