বৈশ্বিক মহামারি করোনার কারণে দীর্ঘ সাত মাস বন্ধ থাকার পর পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হয়েছে সুন্দরবন। তবে সুন্দরবন ভ্রমণ করতে মানতে হবে ৫টি শর্ত।

শর্তগুলো হচ্ছে— কোনো ট্রলারে ২০ জনের বেশি পর্যটক বহন করতে পারবে না। পর্যটকরা খাদ্য ছাড়া অন্য কোনো পণ্য বহন করতে পারবে না। প্রতিটি ট্রলারে স্যানিটারাইজ ও বর্জ্য ফেলার জন্য ঝুড়ির ব্যবস্থা থাকতে হবে। কোনো ট্রলারে মাইক অথবা সাউন্ড বক্স ব্যবহার করা যাবে না।

এদিকে, সবুজ প্রকৃতিতে বুক ভরে নিঃশ্বাস নিতে অনেকেই সুন্দরবনে বেড়াতে ছিুটছেন। পর্যটকরা আবার সুন্দরবন ভ্রমণে যেতে পেরে ভীষণ খুশি। সকালে খুলনা থেকে কটকা এক্সপ্রেস ও মোংলা থেকে আলোর কোল নামের দুইটি লঞ্চে পর্যটকরা সুন্দরবনের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছেন। ট্যুর অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন অব সুন্দরবনের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল আযম ডেভিড এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, পর্যটন মৌসুমকে সামনে রেখে ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছেন ট্যুরস অপারেটররা। নিষেধাজ্ঞা তুলে দেওয়ার পর রোববার সবাই স্বাস্থ্যবিধি মেনেই সুন্দরবনের উদ্দেশে রওয়ানা দিয়েছেন। ৩ ও ৬ তারিখে বেশকিছু লঞ্চ ও জাহাজ পর্যটকদের নিয়ে সুন্দরবনে দিকে রওয়ানা দেবে।