দিনরাত ডেস্ক : পৃথক দুটি বজ্রপাতে তিনজন নিহত এবং দুইজন আহত হয়েছেন।

শনিবার (০৯ মে) বিকেল ৩টার দিকে প্রায় একই সময়ে দুটি বজ্রপাতের এ ঘটনা ঘটে ফরিদপুর সদর উপজেলার ডিক্রিরচর ইউনিয়নের পাল ডাঙ্গী ও সিএনবি ঘাট এলাকায়।

বজ্রপাতে নিহত তিনজন হলেন, ডিক্রিরচর ইউনিয়নের আমিন সিকদারের ডাঙ্গী গ্রামের কামাল ব্যাপারীর ছেলে ট্রাকচালক সুজন ব্যাপারী (২৮), একই ইউনিয়নের ক্ষিদির বিশ্বাসের ডাঙ্গী গ্রামের মোহাম্মদ খাঁর ছেলে অটোবাইক চালক বাবু খা (৫০) ও পাল ডাঙ্গী গ্রামের জয়নাল মোল্লার ছেলে যুবলীগ কর্মী রিপন মোল্লা (২৭)।

সিএনবি ঘাট এলাকায় বজ্রপাতে আহত হন ট্রাকচালক সুজন ব্যাপারি। তাকে ফরিদপুর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

প্রায় একই সময় ডিক্রিরচরের পালডাঙ্গীতে বজ্রপাতে আহত হন চারজন। ওই ব্যাক্তিরা পদ্মা নদীর ওপারে চরে একটি ঘরে অবস্থান করছিলেন। ওই চারজনকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক বাবু খা ও রিপনকে মৃত ঘোষণা করেন। এতে আহত হন ডিক্রিরচর ইউনিয়নের আট নম্বর ওয়ার্ডের যুবলীগের সভাপতি আসলাম মোল্লা (৩২) ও ট্রলারে মাঝি মো. টগর মিয়া (৬১)। আহত ওই দুই ব্যক্তি ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে ডিক্রিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মেহেদী হাসান বলেন, ইউনিয়নে প্রায় একই সময়ে দুই স্থানে দুটি বজ্রপাতের ঘটনায় তিনজন নিহত ও দুইজন আহত হয়েছেন।

ফরিদপুর সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুম রেজা বলেন, নিহতদের প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে দেয়া হবে দাফন কাফনের জন্য।