দিনরাত ডেস্ক : ১২ জানুয়ারি, রোববার বঙ্গবন্ধু বিপিএলের কোন ম্যাচ নেই। বিশ্রামের দিন এটি।

তবে মাঠের ক্রিকেট না থাকলেও এদিনটা ‘ক্রিকেটীয় আলোচনার’ বড় দিন। বিসিবি এদিন বৈঠকে বসছে। যে বৈঠকে অনেক এজেন্ডার সঙ্গে আছে দুটি নাম-মাশরাফি বিন মর্তুজা এবং ওটিস গিবসন।

ক্রিকেটারদের সঙ্গে নতুন চুক্তির ঘোষণা আসবে বিসিবির এই বৈঠক থেকে। সেই সঙ্গে বোলিং কোচ হিসেবে ওটিস গিবসনের সঙ্গে সম্পর্ক গড়া বা না গড়ার বিষয়টিও জানাবে এদিন বিসিবি।

ক্রিকেটারদের সঙ্গে এই নতুন চুক্তিতে নাম থাকছে না সাকিব আল হাসানের। আইসিসির নিষেধাজ্ঞায় চলতি বছরের ২৯ অক্টোবর পর্যন্ত ক্রিকেটে নিষিদ্ধ সাকিব। তাই তাকে বাদ দিয়েই নতুন চুক্তিটা করছে বিসিবি। নতুন চুক্তিতে বহাল থাকছেন ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা।

চুক্তিতে কোন কোন ক্রিকেটার থাকছেন তার একটা মৌলিক ধারণা সাধারণত আসে নির্বাচকদের কাছ থেকে। তারপর সেটা যায় টিম অপারেশন্সের কাছে। সেই তালিকা বোর্ড সভায় পাস হয়।

ক্রিকেটারদের সঙ্গে এবারের নতুন চুক্তি হওয়ার আগে কৌতুহলী প্রশ্ন উঠে-মাশরাফি কি থাকছেন নতুন চুক্তিতে?

এই কৌতুহলের কারণও বিস্তৃত! গত ৫ জুলাইয়ের পর জাতীয় দলের হয়ে আর কোন ম্যাচ খেলেননি মাশরাফি। জনপ্রিয় একটা ধারণা ছড়িয়ে পড়েছিল বিশ্বকাপ শেষেই মাশরাফি ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন। বিশ্বকাপ শেষে শ্রীলঙ্কায় তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে খেলতে পারেননি ইনজুরির কারণে। বছরের শেষভাগে বিসিবি তার বিদায় সম্বধর্নার জন্য আয়োজনের চেষ্টা চালায়। জিম্বাবুয়ের সঙ্গে একটা ওয়ানডে সিরিজের আয়োজন করে সেটাকেই মাশরাফির ‘গুডবাই সিরিজ’ করার পরিকল্পনা নেয় বিসিবি। কিন্তু মাশরাফি তার অবসরের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত করার জন্য আরো খানিকটা সময় চান। সেই সিরিজ আয়োজনের চেষ্টা সেখানেই বাতিল হয়ে যায়।

চলতি সময়ে বয়স, ফর্ম, ফিটনেস এবং রাজনৈতিক ব্যস্ততা-সবকিছুই মাশরাফির জন্য ‘মাইনাস পয়েন্ট’ হয়ে দাড়ায়। সামনের সময়ের ওয়ানডেতে মাশরাফিকে ছাড়া পথ চলার সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় এসে দাড়ায় বিসিবির সামনে। কিন্তু মাশরাফি তার অবসরের বিষয়ে নতুন বছরের ১০ জানুয়ারি নতুন তথ্য জানিয়ে বলেছেন-‘আমি খেলবো, খেলতে চাই।’

সাকিব নিষিদ্ধ হওয়ায় এই মূহুর্তে বিসিবির সামনে ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবেও মাশরাফির বিকল্প কেউ নেই। তাই বিসিবিও সব দ্বিধা দূর করে আরো কিছুদিন মাশরাফির নেতৃত্বের সেবা চায়।

চুক্তিতে থাকা ক্রিকেটারদের তালিকা তৈরির সঙ্গে সরাসরি জড়িত বিসিবির একটি ঘনিষ্ঠ সূত্র জানায়-‘মাশরাফি যেহেতু এখনো তার অবসরের সিদ্ধান্ত জানাননি। তিনি এখনো খেলছেন। কার্যত মাশরাফি এখনো ওয়ানডে দলের অধিনায়ক। তাই বাস্তবতা জানাচ্ছে নতুন চুক্তিতে তার নাম থাকছেই।’