হবিগঞ্জের বানিয়াচংয়ে হত্যা মামলায় এক প্রবাসীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সাথে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও ২ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। এ মামলায় বাকি ১৫ আসামিকে খালাস প্রদান দেয়া হয়।

রোববার দুপুরে হবিগঞ্জের বিজ্ঞ অতিরিক্ত দায়রা জজ এসএম নাসিম রেজা এ রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের মামলা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত পিপি সালেহ উদ্দিন আহমেদ। আসামি পক্ষে ছিলেন, রুখসানা পারভীন চৌধুরী।

রায় ঘোষনার সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি তোফাজ্জল হোসেন পলাতক ছিল। তবে অন্য আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালতের পেশকার সৈয়দ গোলাম হাদি জুয়েল জানান, বানিয়াচং সদরের শেখের মহল্লা গ্রামের ইসলাম উদ্দিনের সাথে একই এলাকার আব্দুল হান্নান গংদের সাথে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে আসামিরা তার উপর মারাত্মকভাবে ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। ২০০৭ সালের ২২ সেপ্টেম্বর সকালে আসামিরা বাড়ি ঘরে হামলা চালিয়ে ইসলাম উদ্দিনকে কুপিয়ে জখম করে। স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল থেকে সিলেট ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ওইদিন রাতেই ইসলাম উদ্দিন মারা যায়।

এ ঘটনায় ইসলাম উদ্দিনের ছেলে মাঈন উদ্দিন বাদি হয়ে পরের দিন (২৩ সেপ্টেম্বর) বানিয়াচং থানায় হান্নানসহ ১৮ জনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পরই এ মামলার আসামি তোফাজ্জল হোসেন দুবাই চলে যায়। অপর আসামিরা আদালতে হাজির হয়ে কারাভোগ করে জামিন লাভ করে।

২০১৮ সালের ১৪ জানুয়ারি বানিয়াচং থানার তখনকার এসআই জিএম আসলামুজ্জামান চার্জশীট দাখিল করেন। ১৭ জন স্বাক্ষির স্বাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এ রায় দেয়া হয়।