হবিগঞ্জের বাহুবলে হাইওয়ে পুলিশের ধাওয়ায় অটোরিকশা খাদে পড়ে চালক নিহত হওয়ার ঘটনায় দীর্ঘ চার ঘন্টা পর অবরোধ তুলে নিয়েছেন সিএনজি অটোরিকশার শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার বেলা ৩টার দিকে বাহুবল উপজেলা চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান, নির্বাহী কর্মকর্তা স্নীগ্ধা তালুকদার, ওসি কামরুজ্জামান ঘটনাস্থলে পৌঁছে শ্রমিকদের শান্ত করলে তারা অবরোধ তুলে নেন।

বাহুবল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি-তদন্ত) আলমগীর কবির জানান, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। এছাড়া লাশ সময়নাতদন্তের জন্য হবিগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এর আগে, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে সিএনজিচালিত অটোরিকশাটি মহাসড়কে উঠলে একে ধাওয়া করে শায়েস্তাগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশের একটি টহল দল। দ্রæত পালাতে গিয়ে চালক নিয়ন্ত্রণ হারালে অটোরিকশাটি রাস্তার পাশে খাদে পড়ে যায়। ঘটনাস্থলেই চালক নিহত হন। আহত হয় অটোরিকশায় থাকা ৫ যাত্রী।

নিহত সিএনজি অটোরিকশা চালক তোফায়েল মিয়া হবিগঞ্জ সদর উপজেলার সুলতানশি গ্রামের ফজলু মিয়ার ছেলে।

ঘটনার পরপরই বিক্ষুব্ধ সিএনজি শ্রমিকরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়ক অবরোধ করে রেখেন। এ সময় একটি মোটরসাইকেল পুড়িয়ে দেন শ্রমিকরা। এতে রাস্তার দুই পাশে কয়েকশ’ যানবাহন আটকা পড়ে।

দুর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিদের হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।