দিনরাত নিউজ : আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপির কাছে সার চেয়ে গুলি খেয়েছিল কৃষকরা। আওয়ামী ক্ষমতার আসার পর ব্যাপক কৃষি উন্নয়ন হয়েছে। দেশ হয়েছে খাদ্য স্বয়ংসম্পূর্ণ। বিশ্বব্যাংক কৃষকদের ভর্তুকি দিতে নিষেধ করেছিল। আওয়ামী লীগ সরকার তা স্বত্বেও ভর্তুকি বহাল রেখেছে।

তিনি বলেন, কৃষকের ক্ষতি হয় এমন শিল্পায়ন হবে না। উন্নয়ন প্রকল্প নেয়ার সময়েও কৃষকদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

বুধবার (৬ নভেম্বর) রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কৃষক লীগের ১০ সম্মেলনের উদ্বোধন করে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, কৃষকদের কথা বিবেচনায় করে সারের দাম কমানো হয়েছে। কৃষকদের ১০ টাকায় অ্যাকাউন্ট খোলার সুযোগও করে দেয়া হয়েছে। ১১ বছরে দেয়া হয়েছে ৬৫ হাজার কোটি টাকা কৃষি ভতুর্কি।

কৃষিকাজে কৃষক লীগের ভূমিকা থাকা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের কৃষিকাজে, খাদ্যে আরও সমৃদ্ধ করতে কৃষক লীগকে সক্রিয়ভাবে কাজ করতে হবে।

এর আগে বেলা সোয়া ১১টার দিকে দলীয় ও জাতীয় পতাকা উত্তোলন এবং কবুতর অবমুক্ত করার মধ্য দিয়ে সম্মেলনের উদ্বোধন করেন তিনি। এরপর সেখানে নির্মিত অস্থায়ী মঞ্চে অনুষ্ঠানের প্রথম অধিবেশনে পরিবেশন করা হয় কৃষক লীগের ‘কৃষক বাঁচাও দেশ বাঁচাও’ থিম সং পরিবেশনের মধ্য দিয়ে।

এর আগে সকালে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনাকে বহনকারী গাড়ি বহরটি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পৌঁছায়। সেখানে নেতা-কর্মীরা তাকে শুভেচ্ছা জানান।

সম্মেলন উপলক্ষে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান নেতা-কর্মীদের পদচারণায় মুখরিত।

অন্যান্যের মধ্যে সম্মেলেনে যোগ দেন দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সভাপতিমণ্ডলির সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী আবদুর রাজ্জাক, সাংগঠনিক সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, এনামুল হক শামীম, কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ফরিদুন্নাহার লাইলী, দুর্যোগ ও ত্রাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় সদস্য মারুফা আক্তার পপিসহ আরও অনেকে। উপস্থিত ছিলেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।