তখন রাত সাতটা ৫০ মিনিট। একটু পরেই শুরু হবে এশার নামাজ। এমন সময় চলে যায় বিদ্যুৎ। নামাজ যেন বিঘ্নিত না হয় সেজন্য মসজিদের জেনারেটরে তেল ভরতে যান খাদেম বাদল। এ সময় হাতে থাকা মোম থেকে তেলে আগুন ধরে যায়। আর তাতেই দগ্ধ হয়ে প্রথমে গুরুতর আহত এবং পরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তার।

ঘটনাটি রোববার (৪ এপ্রিল) নরসিংদী সদর উপজেলার চিনিশপুর ইউনিয়নের ঘোড়াদিয়া সংগীতা এলাকায় ঘটে। এতে শুক্রবার (৯ এপ্রিল) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহত মো. বাদল মিয়া ওই এলাকার মৃত ঠেলা মিয়ার ছেলে। তিনি ওই এলাকার বাইতুল ইসলাম জামে মসজিদে খাদেম হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রোববার (৪ এপ্রিল) এশার নামাজের সময়ে বিদ্যুৎ না থাকায় বাদল মিয়া মসজিদের জেনারেটরে ডিজেল ভরতে যান। ওই সময় তার হাতে থাকা মোমবাতি থেকে ডিজেলে আগুন ধরে যায়। এতে বাদল মিয়ার শরীরে আগুন লাগে। পরে আগুন নিভিয়ে তাকে নরসিংদী সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।

এর পর ঢামেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শুক্রবার তার মৃত্যু হয়। আগুনে তার শরীরের মোট ৩০ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।