ফুটবল প্রশিক্ষণের দৌড় প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করায় নিজ একাডেমির ক্ষুদে ফুটবলারকে একটি মোটরসাইকেল উপহার দিয়েছেন দেশে-বিদেশে আলোচিত আইনজীবী ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমন।

শুক্রবার দুপুরে প্রথম স্থান অর্জনকারী ক্ষুদে ফুটবলার নাসির হোসেনের হাতে মোটরসাইকেলটি তুলে দিয়ে নিজের ফেসবুক পেইজে লাইভে এসে বিষয়টি জানান।

ব্যারিস্টার সুমন তার নিজ এলাকা হবিগঞ্জের চুনারুঘাট উপজেলার ডিসিপি হাইস্কুল মাঠে একজন বিশেষজ্ঞ কোচের মাধ্যমে ‘সুমন ফুটবল একাডেমী’র ফুটবলারদের একটি প্রশিক্ষণের আয়োজন করেন। এই প্রশিক্ষণে ১০ মিনিটের মধ্যে পুরো ৪০০ মিটার মাঠে ৯টি চক্কর দিয়ে প্রথম স্থান অর্জন করে নাসির হোসেন। তার এই দূর্ধান্ত পার্ফমেন্স দেখে মুগ্ধ হন ব্যারিস্টার সায়েদুল হক সুমন। তাৎক্ষণিক তিনি মাঠে আসা এক যুবকের কাছ ৫০ হাজার টাকা দিয়ে থেকে পুরনো একটি মোরসাইকেল নাসিরকে উপহার দে।

পরে নিজের ফেসবুক পেইজে লাইভে এসে ব্যারিস্টার সুমন বলেন, ‘আজ সুমন ফুটবল একাডেমীর উদ্যোগে কোচের অধীনে ফুটবল প্রশিক্ষণ হয়েছে। এই প্রশিক্ষণে ১০ মিনিটের মধ্যে পুরো মাঠে নাসির নামে এই ছেলেটি ৯টি চক্কর দিয়ে সবার মধ্যে সে প্রথম হয়েছে। তাই তাকে আমি এই মোটরসাইকেলটি উপহার দিয়েছি।’

তিনি বলেন, ‘নাসিরের বয়স মাত্র ১৭ বছর। সে খুব মনযোগী ফুটবলার। আমি আশা করি নাসির একদিন অনেক বড় একজন ফুটবলার হবে। নাসির খুবই গরিব এবং তার বাবা চা বিক্রি করেন। সে অনেক দূর থেকে প্রতিদিন প্রশিক্ষণে আসে। এজন্য তাকে মোটরসাইকেলটি কিনে দিলাম। এতে প্রশিক্ষণে আসা-যাওয়ার ক্ষেত্রে তার অনেক সুবিধা হবে।’

উপহার পাওয়া ক্ষুদে ফুটবলার নাসির বলেন, ‘বড় হয়ে আমি ফুটবলার হতে চাই। বাংলাদেশের জাতীয় দলে খেলতে চাই। বড় ফুটবলার হলে নিজের দেশকে এগিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করব। এছাড়া এলাকার জন্যও কাজ করব|