হবিগঞ্জের মাধবপুরে সিএনজি অটোরিক্সা চাপায় কুকুরের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ৫০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর আধুনিক হাসপাতালসহ বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

রোববার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত উপজেলার ঘিলাতলী ও মিঠাপুকুর গ্রামবাসীর মধ্যে দফায় দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

মাধবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আব্দুর রাজ্জাক জানান, শনিবার রাতে মিঠাপুকুর গ্রামের কাউছার মিয়া অটোরিক্সা নিয়ে ঘিলাতলী গ্রামের রাস্তা দিয়ে দ্রæত গতিতে যাওয়ার সময় ঘিলাতলী গ্রামের একটি কুকুরকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই কুকুরটি মারা যায়। এ নিয়ে ঘিলাতলী গ্রামের সুরুজ আলী ও মিঠাপুকুর গ্রামের অটোচালক কাউছার মিয়ার মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। এর জের ধরে উভয় গ্রামের মধ্যেই উত্তেজনা দেখা দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করে এবং বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য রোববার শালিস বৈঠক ধার্য্য করা হয়।

রোববার শালিস বৈঠক শুরু হওয়ার আগেই দুÕগ্রামবাসি সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে উভয় পক্ষের নারী-শিশুসহ অন্তত অর্ধশতাধিক লোকজন আহত হয়।

আহতদের মধ্যে মাতু মিয়া, বাবুল মিয়া, জসিম মিয়া, মোহন মিয়া, আলী আজগর, কাওছার মিয়া, আলাল মিয়া, ফেরদৌস, মিলু মিয়া, আবুল মিয়া, সুহেল মিয়া, ফয়সল মিয়া, মিলন মিয়া, আব্দুল হক, ইদন মিয়া, মাসুদ, রাজু, নুরুল হক, খালেক, তৌহিত, আশিকুর, হেলাল, ইলিয়াস, আব্দুল, আল মিয়া, রেনু মিয়া, মহিউদ্দিন, আনারুল, শাহিন, ফরিদ ও ফয়েজ আহমেদকে হবিগঞ্জ ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হাসপাতাল এবং মাধবপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, বর্তমানে পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে। ফের সংঘর্ষ এড়াতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।