হবিগঞ্জের মাধবপুরে প্রধান বিচারপতির কাছের লোক পরিচয় এবং হত্যা মামলার আসামিদের মৃত্যুদণ্ড দেয়ার কথা বলে বাদি পক্ষের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৭ এপ্রিল) ভোররাতে সিলেটের ওসমানীনগর থানা পুলিশের সহায়তায় মাধবপুর থানা পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃত দেলোয়ার হোসেন বুলবুল ওসমানী নগর উপজেলার কোণাপাড়া গ্রামের মৃত কনা মিয়ার ছেলে।

মাধবপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এনামুল হক বলেন, কয়েক মাস আগে মাধবপুর উপজেলার হাড়িয়া গ্রামে একটি সংঘর্ষের ঘটনায় মর্তুজ আলী নামে এক ব্যক্তি মারা যান। এ ঘটনায় মর্তুজ আলীর ভাতিজা আল আমীন বাদি হয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলা দায়েরের পর মর্তুজ আলী পরিবারের লোকজনের সাথে প্রতারণার আশ্রয় নেয় আটককৃত বুলবুল। এ সময় সে নিজেকে প্রধান বিচারপতি কাছের লোক পরিচয় দিয়ে আসামিদের মৃত্যুদণ্ডের ব্যবস্থা করে দেয়ার কথা বলে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেয়। এমনকি প্রধান বিচারপতির স্বাক্ষর জাল করে মাধবপুর থানায় একটি গ্রেফতারী পরোনারা পাঠায়।

তার প্রতারণার বিষয়টি বুঝার পর পর এ ঘটনায় মর্তুজ আলীর ভাতিজা আল আমিন বাদি হয়ে দেলোয়ার হোসেন বুলবুলের বিরুদ্ধে হবিগঞ্জ বিচারিক আদালতে প্রতারনা ও জাল জালিয়াতির মামলা করেন। মামলা দায়েরের পর আদালতের নির্দেশে দেলোয়ার হোসেন বুলবুলকে সিলেটের ওসমানীনগর উপজেলার কোণাপাড়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মাধবপুর থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রাজ্জাক বলেন, গ্রেপ্তারকৃত বুলবুল একজন পেশাদার প্রতারক। তার বিরুদ্ধে প্রতারণার আরও একাধিক মামলা রয়েছে।