এবার মাধবপুর উপজেলার বুল্লা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড বিএনপি সভাপতি এবং বর্তমান ইউপি সদস্য (মেম্বার) শানু মিয়ার বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীর ২৫০০ টাকার ঈদ উপহারের তালিকা তৈরীতে ব্যাপক অনিয়ম-দূর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারীতার অভিযোগ উঠেছে। ইউপি সদস্য তার পিতাসহ কয়েকজন নিকটাত্মীয়ের নাম তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করেছেন।

অনুসন্ধানে জানা যায়, এমনকি এমনকি একই পরিবারের একাধিক সদস্য, মেয়ের জামাই, দেবরের নামও রয়েছে তালিকায়। এখানেই শেষ হয়, এমনকি দুই ওমান প্রবাসীর বাবার নামও রয়েছে তালিকায়। ইউপি সদস্যের আপন শ্যালক মিনহজ মিয়ার পিতা মৃত রংগু মিয়া, আপর শ্যালক রাইহান মিয়া পিতা রেনু মিয়ার নামও রয়েছে তালিকায়।

এভাবে তার আত্মীয় আরও কায়কজনের নাম পাওয়া গেছে। তারা হলেন- দেলোয়ার আলী ও তার ভাই সফর আলী পিতা মৃত জহুর আলী, জিয়াউদ্দিন ও তার ভাই সালাহ উদ্দিন পিতা আলা উদ্দিন।

স্থানীয়রা বলছেন, আগামী নির্বাচনে ভোটের জন্য অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে তার আত্মীয় স্বজনের নাম তালিকায় দেওয়া হয়েছে। তার আত্মীয় ছাড়া গ্রামের আর অন্য কোন লোকের নাম ওই তালিকায় নাই। যাদের নাম দেয়া হয়েছে তারা অনেকেই ভিত্তশালী।

এ ব্যাপারে সুবিধা বঞ্চিত অসহায় মানুষের পক্ষ থেকে এলাকাবাসী নিরুপায় হয়ে গত ১৯ মে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন বানেশ্বর গ্রামবাসী।