দিনরাত আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) জার্মানির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হাইকো মাশকে অনুরোধ করেছেন যে নিজ মাতৃভূমি থেকে জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত হওয়া রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের জন্য মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে।

জার্মান প্রতিপক্ষের সঙ্গে এটি তার প্রথম দ্বিপক্ষীয় বৈঠক। ড. মোমেন জাতিসংঘের ৭৪তম সাধারণ সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী প্রস্তাবিত চারটি বিষয় উল্লেখ করেন এবং মিয়ানমার সরকার যাতে রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে পারে সেজন্য কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য জার্মান সরকার ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান। রোহিঙ্গাদের প্রতি সংঘটিত নৃশংসতার জন্য মিয়ানমারের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে জার্মানির সমর্থনও চান।

বৈঠককালে ড. মোমেন বাংলাদেশে জার্মানির ব্যবসায়ীদের সরাসরি বিনিয়োগের আহ্বান জানান। দু’দেশের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের সব বিষয় বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। বৈঠকে জার্মানির সংস্থা ভেরিডোসের ই-পাসপোর্ট বাস্তবায়ন প্রকল্প এবং জ্বালানি খাতে জার্মান কোম্পানি সিমেন্স এজির কর্মকাণ্ড ও উন্নয়নের সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হয়। দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান শক্তিশালী বাণিজ্যিক সম্পর্কের কথা উল্লেখ করা হয় বৈঠকে।

পারস্পরিক স্বার্থের বিশ্বব্যাপী ইস্যু নিয়ে কথা বলার সময় ড. মোমেন জাতিসংঘে বাংলাদেশ কর্তৃক গৃহীত ও প্রচারিত ‘শান্তি সংস্কৃতির’ প্রস্তাব তুলে ধরেন। পরামর্শ দেন রাষ্ট্রগুলো যদি শান্তিপূর্ণ মনোভাব ও সহনশীলতার অনুশীলন করে, তাহলে বেশিরভাগ সংকট এড়ানো সম্ভব।

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দেওয়ার ক্ষেত্রে বাংলাদেশের মানবিক অবস্থানের গভীর প্রশংসা করেছেন। তিনি বাংলাদেশের অর্জিত অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়নের প্রশংসা করেন এবং জলবায়ু পরিবর্তনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জার্মানি বাংলাদেশকে সমর্থন প্রদান করবে এ আশ্বাস দেন।