অনেকেই শখ করে ঘরে বিড়াল পুষতে পছন্দ করেন। তাই বলে বিড়ালের ভিড়ে মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না, এমনটা নিশ্চয় আশা করা যায় না। অথচ সত্যিই এমন পরিস্থিতি ঘটেছে জাপানের একটি দ্বীপে।

আস্ত দ্বীপটি যেন হয়ে উঠেছে বিড়ালের স্বর্গরাজ্য। তাই আগে দ্বীপটির একটি পোশাকি নাম থাকলেও এখন তা সবার কাছে পরিচিত ‘ক্যাটস আইল্যান্ড’ বা ‘বিড়ালের দ্বীপ’ হিসেবে।

বলা হচ্ছে, জাপানের ‘আওশিমা’ দ্বীপের কথা, যেখানে মানুষের চেয়ে বিড়ালের সংখ্যা প্রায় ছয়গুণ বেশি। তবে জাপানে এটিই যে বিড়াল-অধ্যুষিত একমাত্র দ্বীপ তা নয়। দেশটিতে এমন ডজনখানেক বিড়ালের দ্বীপ আছে বলে জানা গেছে। আওশিমা আসলে মৎস্যজীবীদের গ্রাম। মাছের অফুরন্ত সরবরাহই এখানে বিড়ালদের এমন বংশবৃদ্ধির কারণ। সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের বদৌলতে ব্যাপক জনপ্রিয়তা পেয়েছে এই বিড়ালদ্বীপ।

বিড়ালদের রাজত্ব দেখতে প্রতিদিনই এখন আওশিমায় ভিড় জমাচ্ছেন পর্যটকরা। বেড়াতে এসে তারাই এখন বিড়ালদের বিভিন্ন খাবার দিচ্ছেন। সম্প্রতি এই বিড়ালদ্বীপের বিভিন্ন ছবি তুলেছেন বিখ্যাত ফটোগ্রাফার কেই নোমিয়ামা।

তিনি জানান, ইহিমা উপকূল থেকে আওশিমা দ্বীপটি ৩০ মিনিট দূরত্বে অবস্থিত। ১৯৪৫ সালেও এখানে ৯০০ মানুষ বসবাস করত; কিন্তু এখন দ্বীপটিতে মাত্র ১৫ জন মানুষ বাস করেন। খবর মেইল অনলাইনের।