সানি চন্দ্র বিশ্বাস, লাখাই : হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার ভাদিকারা গ্রামে প্রখ্যাত মরমী কবি শেখ ভানু শাহের মাজারের স্মৃতিফলক উন্মোচন ও সমাধিসৌধের সংস্কার কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।

বুধবার হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসক মাহমুদুল কবীর মুরাদ স্মৃতিফলক উন্মোচন ও সমাধিসৌধের সংস্কার কাজের উদ্বোধন করেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোছা. শাহীনা আক্তার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সঞ্চিতা কর্মকার, মাজার কমিটির সদস্যবৃন্দ ও স্হানীয় জনতা।
কবি ও আধ্যাত্মিক সাধক শেখ ভানু শাহ ১৮৪৯ সালে লাখাই উপজেলার ভাদিকারা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতার নাম মুন্সি নাসিরুদ্দিন।  তিনি মরমী কবি লালন শাহের পরই অন্যতম আধ্যাত্মিক মরমী কবি। ১৯৩৩ সালে কলকাতায় বঙ্গীয় মুসলিম সাহিত্য সমিতির সভায় ভানুশাহসহ চারজন সাধককে দার্শনিক কবি হিসেবে ভূষিত করা হয়।
অন্যরা হলেন- লালন শাহ, মদন শাহ ও হাছন রাজা।
শেখ ভানু শাহ ‘নিশীথে যাইও ফুল বনেরে ভ্রমরা’ নামক কালজয়ী গানের স্রষ্টা। ১৯৩৫ সালে এই গানটি গেয়ে শচীন দেব বর্মন ভারতীয় শ্রেষ্ঠ গায়ক হিসেবে পুরষ্কৃত হন।  তিনি আধাত্ম্যিক ভাবনায় বিভোর হয়ে হাজারো গান রচনা করেন। তিনি পুথিঁ সাহিত্যে ও খুব দক্ষ ছিলেন। ভানু বেপারী থেকে ভানু শাহ হিসেবে আত্মপ্রকাশ করা সম্পর্কে তার একটি কিংবদন্তী প্রচলিত আছে যে, নদীতে ভাসমান মৃতদেহ দেখে তিনি ভাবাবিষ্ট হয়ে পড়েন এবং তিনি সংসারের প্রতি বিমুখ হয়ে আধাত্ম্য সাধনায় নিমগ্ন হন। তিনি ১৯১৯ সালে মৃত্যুবরণ করেন। প্রতি বছর ১৪ই পৌষ ভাদিকারা গ্রামে শেখ ভানু শাহের স্মরনে ওরস মাহফিলের আয়োজন করা হয়।