দিনরাত প্রতিবেদক : অসময়ের হালকা বৃষ্টিতে তাপমাত্রা খানিকটা বৃদ্ধি পেয়েছিল। কিন্তু বৃষ্টির রেশ কাটতে না কাটতে জেঁকে বসেছে পৌষের শীত। তীব্র শীতের প্রভাবে জনজীবন হয়ে পড়েছে বিপর্যস্ত।

আবহাওয়াবিদরা বলছেন, গত দুদিনের বৃষ্টির কারণে রাজধানীতে শীতের তীব্রতা আরো বেড়েছে।

শুক্রবার (২৭ ডিসেম্বর) সকাল থেকেই রাজধানীর চারপাশ ঘিরে ছিল কুয়াশা। দিনের বেশিরভাগ সময় সূর্যের দেখাও পাওয়া যায়নি। এদিন দুপুরে শহরের কয়েকটি এলাকায় স্বল্প পরিমাণে বৃষ্টি হওয়ায় আজ দিনের পরিবেশ আরো বেশি শীতল।

এ প্রসঙ্গে আবহাওয়াবিদ আবদুর রহমান বলেন, আগামী ২৪ ঘণ্টায় তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কমতে পারে। রাজধানীতে দিনের পরিবেশ কুয়াশাচ্ছন্ন থাকবে। শনিবার রোদের দেখা পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। এই অবস্থা আরো দুদিন থাকতে পারে।

তিনি আরো জানান, শৈত্যপ্রবাহ, বৃষ্টি ও তাপমাত্রা হ্রাসের কারণে শীত বেড়েছে। এছাড়া উচ্চচাপ বলয়ের প্রভাব এবং মৌসুমি লঘুচাপ শীতের অনুভূতি বাড়িয়ে দিচ্ছে। ১৭ ডিসেম্বর থেকে এ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

এদিকে, শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে কুয়াশার প্রকোপ। ভোরে ও সন্ধ্যায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টির মতো পড়ছে কুয়াশা, পড়ছে দেশের অনেক জায়গায়। ঘন কুয়াশার কারণে স্থল ও নৌপথে যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

উল্লেখ্য, শুক্রবার দেশে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় তেঁতুলিয়ায় ৯.২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন দুপুর ১২টা পর্যন্ত সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে টেকনাফে ১০ মিলিমিটার।