নিরাপদ প্রসব সেবা কার্যক্রমে হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলার করাব ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্র জানুয়ারি-২০২১ এ সারা বাংলাদেশের প্রায় ৪ হাজার ৫শ’ টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের মধ্যে ৩য় স্থান অর্জন করেছে।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, ২০১৫ সালের এপ্রিল মাস থেকে লাখাই’র করাব ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে ২৪ ঘন্টা স্বাভাবিক প্রসব সেবা চালু করা হয়। শুরু থেকে করাব ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রে কর্মরত সেবা দানকারীদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিকতায় কেন্দ্রের সেবার মান বৃদ্ধি পেতে থাকে। বর্তমানে এ কেন্দ্রে প্রতিমাসে গড়ে ৬০-৭০টি স্বাভাবিক ও নিরাপদ প্রসব সংগঠিত হয়ে আসছে।

কেন্দ্র সূত্রে আরও জানা যায়, ২০১৯ সালে ৩৮৬ টি এবং ২০২০ সালে ৫২৬ টি স্বাভাবিক প্রসব সংঘটিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় জানুয়ারি ২০২১ এ ৭৫ টি স্বাভাবিক ও নিরাপদ প্রসব সংগঠিত হওয়ায় সারা বাংলাদেশের ৪ হাজার ৫শ’ টি ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান কেন্দ্রের মধ্যে ৩য় স্থান অর্জন করে।

বাংলাদেশ সরকারের টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা অর্জনে মাতৃমৃত্যু ও শিশুমৃত্যু হ্রাস করাসহ সাধারণ রোগের সেবা ও পরামর্শ সাধারণ জনগণের কাছে সহজিকরণ করতে এ কেন্দ্রে কর্মরত সেবা দানকারীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। এরই ফলশ্রুতিতে এবারের এ অর্জন। এক্ষেত্রে কেন্দ্রের উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার মো. ফরাশ উদ্দিন, ইউনিয়ন স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক সঞ্জীত সিনহা, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শিকা সূচিত্রা রাণী দাস, পরিবার কল্যান সহকারী রাজিয়া সুলতানা সীমাসহ সংশ্লিষ্ট সকলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় কেন্দ্রের সেবার মান দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এ কেন্দ্রে বর্তমানে করাব ইউনিয়ন ছাড়াও বুল্লা ইউনিয়ন, মুড়িয়াউক ইউনিয়ন সহ উপজেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সেবা নিতে আসছে। মাতৃমৃত্যু রোধেও এ কেন্দ্র সফলতা অর্জন করছে।

এব্যাপারে পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক সঞ্জীত সিনহা এর সাথে আলাপকালে জানান, এ অর্জন করাব ইউনিয়নের জন্য অনেক বড় অর্জন, এই অর্জন আমাদের করাব টিমের সকল সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও কাজের প্রতি আন্তরিকতার ফসল। টিমের সকলই আমাদের বড় শক্তি, সবাই একসাথে এক হয়ে কাজ করাতে আমরা আস্তে আস্তে আমাদের লক্ষ্যে পোঁছাচ্ছি এবং জনগণের মাঝে তাদের প্রাপ্য স্বাস্থ্য সেবা সহজে পৌঁছে দিতে পারছি। এই অর্জন যাতে সামনের দিনগুলোতেও অব্যাহত থাকে টিমের সকলের প্রতি তিনি এই আশা-প্রত্যাশাই ব্যাক্ত করেন।