করোনাভাইরাস মহামারির দ্বিতীয় ঢেউ ও সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলার এবং গণপরিবহনের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। সরকারের নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী আগামীকাল (বুধবার) থেকে সিলেটেও এ সিদ্ধান্ত কার্যকর করবেন পরিবহন শ্রমিক নেতারা।

বিষয়টি মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) বিকেলে নিশ্চিত করেছেন সিলেট জেলা বাস মিনিবাস-কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি ময়নুল ইসলাম।

তিনি বলেন, সিলেটকে সুরক্ষিত রাখার স্বার্থে সরকারের নতুন নির্দেশনা অনুযায়ী বুধবার সকাল থেকেই জেলার সর্বত্র গণপরিবহনে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করা হবে। এছাড়া গত বছরের মতো নির্ধারিত ভাড়ার চেয়ে ৬০ শতাংশ ভাড়া যাত্রীদের কাছ থেকে নেয়া হবে।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে ময়নুল ইসলাম বলেন, এক সিটে দুইজন নিয়ে অথবা ৬০ ভাগের বেশি ভাড়া নিয়ে যদি কোনো যাত্রীকে বাসের চালক বা পরিবহন শ্রমিক হয়রানি করেন এবং আমাদের কাছে অভিযোগ করার পর এর প্রমাণ মিলে তবে ওই চালক বা শ্রমিককে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হবে।

বাসে যাতে স্বাস্থ্যবিধি মানা হয় এবং যাত্রীদের হয়রানি না করা হয় সেজন্য আমরা নজরদারি অব্যাহত রাখবো।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে শারীরিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহন করায় গণপরিবহনে ৬০ ভাগ ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামীকাল (বুধবার- ৩১ মার্চ) থেকে এ সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে এবং পরবর্তী দুই সপ্তাহ তা বহাল থাকবে।

মঙ্গলবার (৩০ মার্চ) সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবনে ব্রিফিংকালে এ সিদ্ধান্তের কথা জানান।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় আগামীকাল থেকে দেশের সকল গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী নেওয়া সাপেক্ষে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আগামী দুই সপ্তাহ পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ভাড়া পূর্বের অবস্থায় ফিরে আসবে।’

এর আগে করোনা সংক্রমণ শুরু হলে ২০২০ সালের ৩১ মে থেকে গণপরিবহনে অর্ধেক আসন খালি রাখতে বলে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। তখন বাস মালিকদের দাবির মুখে বাস ভাড়া ৬০ ভাগ বাড়ায় সরকার। এর আগে দীর্ঘদিন গণপরিবহন চলাচল বন্ধ থাকে।

তবে করোনার সংক্রমণ কিছুটা কমে আসায় গত বছরের ১ সেপ্টেম্বর থেকে আবারও বাসের সব সিটে যাত্রী পরিবহন শুরু হয়।