করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দীর্ঘ এক মাস পর করোনারি কেয়ার ইউনিট (সিসিইউ) থেকে কেবিনে নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউ থেকে তাকে কেবিনে স্থানান্তর করা হয় বলে নিশ্চিত করেছেন দলটির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শায়রুল কবির খান।

এদিকে বেগম জিয়ার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন তার ব্যক্তিগত চিকিৎসক।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই চিকিৎসক বলেন, ‘ম্যাডামের শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় তাকে সিসিইউ থেকে কেবিনে নেয়া হয়েছে। আমরা গত এক সপ্তাহ ধরে তার স্বাস্থ্য পর্যবেক্ষণে রেখেছিলাম।

‘এখন তার জ্বর নেই। শ্বাসকষ্টও নেই। খাবার স্বাভাবিক। ঘুমও ভালো হচ্ছে।’

তিনি জানান, বেগম জিয়ার হার্টের অবস্থা এখন বেশ ভালো, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে এবং ফুসফুসে এখন আর পানি জমছে না।

কেবিন থেকে কবে বাড়ি নেয়া হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপাতত তিনি কেবিনেই আছেন। অন্যের সাহায্যে কিছুটা হাঁটতে পারছেন। তবে বাড়ি ফেরার মতো সুস্থ এখনও তিনি হননি। আথ্রাইটিসসহ আগের যেসব সমস্যা আছে, সেগুলো নিয়ে এখন চিকিৎসা চলবে।

‘এক সপ্তাহ আগে তার অ্যান্টিবায়োটিক ওষুধ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।’

গত ৩ মে রাতে শ্বাসকষ্ট হলে তাকে সিসিইউতে নেয়া হয়। এর আগে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত খালেদা জিয়াকে গত ২৭ এপ্রিল এভারকেয়ার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১০ এপ্রিল খালেদা জিয়ার করোনা পরীক্ষা করা হলে ১১ এপ্রিল রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে তিনি এখন করোনামুক্ত।