ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের প্রতিবাদে এবং চট্টগ্রামে মাদারাসা ছাত্রদের ওপর হামলার খবরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিক্ষোভ করছেন মাদরাসাছাত্ররা। একই সঙ্গে রেলওয়ে স্টেশনে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করায় ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

শুক্রবার (২৬ মার্চ) বিকেল তিনটা থেকে জেলা সদরের বিভন্ন স্থানে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ করছেন তারা। বিকেল সাড়ে সাড়ে তিনটার দিকে জেলা সদরের ভাদুঘর এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেন বিক্ষুব্ধরা।

এরপর বিকেল ৪টার দিকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। এ ঘটনায় ঢাকার সঙ্গে চট্টগ্রাম ও সিলেটের রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। ফলে কয়েকটি ট্রেন বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়েছে বলে জানিয়েছে রেলওয়ে পুলিশ।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনের মাস্টার মো. শোয়েব আহমেদ বলেন, বিকেলে কয়েকশ মাদরাসাছাত্র স্টেশনে এসে হামলা চালান। এ সময় তারা প্যানেল টিকিট কাউন্টার, প্যানেল বোর্ড ও যাত্রীদের চেয়ার ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করেন। এতে করে ট্রেন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়।

আখাউড়া রেলওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাজহারুল করিম বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেলওয়ে স্টেশনে ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। মাদরাসাছাত্ররা রেললাইনে অবস্থান করছেন। ফলে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তনগর জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ট্রেনটি আজমপুর রেলওয়ে স্টেশন ও চট্টগ্রাম থেকে আসা ঢাকাগামী মহানগর এক্সপ্রেস ট্রেনটি আখাউড়া রেলওয়ে স্টেশনে আটকা পড়ে আছে।