সংসদ সদস্য এডভোকেট মো. আবু জাহির বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আজ আমরা একটি স্বাধীন বাংলাদেশ পেতাম না। টুঙ্গিপাড়ায় জন্ম নেওয়া সেই খোকা দেশের মানুষের জন্য দীর্ঘ সংগ্রামের পথ পাড়ি দিয়ে জাতির পিতায় পরিণত হয়েছেন। পরবর্তীতে বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে দেশকে ধ্বংসের দিকে ঠেলে দিতে চেয়েছিল জিয়াউর রহমান। কালো আইন করে হত্যার বিচার বন্ধ করে দিয়েছিল জিয়াউর রহমান এবং এরশাদ। বিভিন্ন সময় জাতির পিতার নাম মুছে দেওয়ার চেষ্টা করেছে কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনার সাহসী নেতৃত্বের কারণে একে একে সকল খুনীদের বিচার বাংলার মাঠিতে করেছেন। আজ বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপনের সোনার বাংলা বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে।

বুধবার (১৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ১০টায় হবিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কর্তৃক আয়োজিত শিল্পকলা একাডেমীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ১০১ তম জন্মবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্লা, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুল ইসলাম, সিভিল সার্জন ডা. এ কে এম মোস্তাফিজুর রহমান, উপপরিচালক এনএসআই আজমল হোসেন, নবনির্বাচিত মেয়র আতাউর রহমান সেলিম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাচ্ছিরুল ইসলাম, জেলা আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট মো. আলমগীর চৌধুরী ও সাবেক মেয়র শহীদ উদ্দিন চৌধুরী।

জেলা প্রশাসক ইশরাত জাহান বলেন, বর্তমান প্রজন্ম বঙ্গবন্ধু আর্দশকে ধারণ করে নিজেদের ভবিষ্যৎ গড়ে তুলার আহবান জানান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মর্জিনা আক্তার।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ইসলামীক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক শাহ নজরুল ইসলাম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি এডভোকেট নিলাদ্রী শেখর পুরকায়স্থ টিটু, প্রেসক্লাব সভাপতি চৌধুরী মোহাম্মদ ফরিয়াদ, বিশিষ্ট লেখক তাহমিনা বেগম গিনি, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক বুরহান উদ্দিন চৌধুরী, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুহিবুর রহমান মাহি প্রমুখ।