দেশে করোনার প্রাদুর্ভাব না কমলেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলে দেয়া হয়েছে দোকানপাঠ। আজ বৃহস্পতিবার থেকে চলবে জেলা ভিত্তিক গণপরিবহন। তবে এক্ষেত্রে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। যদিও বাস্তবে মাঠে এ চিত্র ভিন্ন।

হবিগঞ্জ শহরের গণপরিবহন খ্যাত টমটম। লকডাউনের শুরু থেকেই হবিগঞ্জ শহরে টমটম চালকদের স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে ৫ টাকার ভাড়া দ্বিগুণ করে ১০ টাকা নির্ধারণ করা হয়। মাঝে কিছুদিন সেই নিয়মকানুন চালকরা মেনে চললেও সম্প্রতি আবারো উদাসীন তারা। ভাড়া ১০ টাকা করে নিয়েও চালকরা যাত্রী নিচ্ছেন ৬/৭ জন করে। এমতাবস্থায় করোনার উর্ধ্বগতির শঙ্কায় রয়েছে সচেতন হবিগঞ্জবাসি।

বুধবার রাতে হঠাৎ করেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয় হবিগঞ্জ শহরে পুর্বের ন্যায় টমটম ভাড়া হবে ৫ টাকা করে। এক্ষেত্রে হবিগঞ্জ পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পান্না কুমার শীল থেকে শুরু করে অনেককেই পোস্ট দিতে দেখা গেছে সামাজিক যোগাযোগ এ মাধ্যমটিতে। অনেকে আবার পোস্টে উদ্ধৃতি (বরাত) দিয়েছেন মেয়র সেলিমের।

তবে হবিগঞ্জ পৌরসভার মেয়র আতাউর রহমান সেলিম জানিয়েছেন এ বিষয়ে এখনও কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

মেয়র বলেন, ভাড়া কমানোর বিষয়ে কোন মিটিং বা আলাপ আলোচনা হয়নি। হবিগঞ্জ পৌর এলাকায় ১০ টাকা ভাড়াতেই চলবে টমটম। তবে এক্ষেত্রে অনুসরণ করতে হবে স্বাস্থ্যবিধি। যাত্রী নিতে হবে অর্ধেক।

তবে সচেতন মহল মনে করছেন, অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে যাতে করে টমটম চালাতে না পারে সেজন্য আইনশৃঙ্খলাবাহীনিকে আরো কঠোর হতে। একই সাথে আইনশৃঙ্খলা বাহীনির সাথে সমন্বয় করে হবিগঞ্জ পৌরসভাকেও কাজ করতে হবে।