হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কে যাত্রীবাহি বাস ও সিএনজি অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে স্কুল শিক্ষিকাসহ দুইজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও চারজন। তাদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বুধবার বিকেল চারটার দিকে হবিগঞ্জ-শায়েস্তাগঞ্জ সড়কে ধুলিয়াখাল আমতলী এলাকায় এ দুর্ঘটনাটি ঘটে।

নিহতরা হলেন, চুনারুঘাট উপজেলার শানখলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা রোকেয়া খাতুন (৪৫) ও সদর উপজেলার শরীফপুর গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম (২৮)। সে বাহুবলের মিরপুর আলীফ সুবহান কলেজের ছাত্র।

হবিগঞ্জ সদর থানার উপ-পরিদর্শক এসআই সাইদুর রহমান জানান, হবিগঞ্জ শহর থেকে একটি যাত্রীবাহী বাস শ্রীমঙ্গল যাচ্ছে। পথিমধ্যে আমতলী এলাকায় পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজি অটোরিকশার সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই রোকেয়া খাতুন মারা যান।

স্থানীয় লোকজন আহত পাঁচজনকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে পাঠালে সেখানে নিয়ে যাওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইফুলকে মৃত ঘোষণা করেন।

আহতরা হলেন, হবিগঞ্জ শহরের শায়েস্তানগর এলাকার জামাল মিয়ার স্ত্রী আছমা খাতুন (৩০), একই এলাকার ওয়াহিদুর রহমানের স্ত্রী মারিয়া খাতুন (৩০) ও মেয়ে আরিয়া আক্তার (৩), চুনারুঘাট উপজেলার দেওন্দি এলাকার মৃত দেবানন্দ দাশের ছেলে চন্দন কুমার দাশ (৫০)। আহতদের মধ্যে তিনজনকে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া আশঙ্কাজনক অবস্থায় শিশু আরিয়া আক্তারকে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুল্লাহ জানান, সিএনজি অটোরিকশাটি হবিগঞ্জ যাচ্ছিল। এ সময় অপর একটি সিএনজি অটোরিকশাকে ওভারটেক করতে গিয়ে বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে সিএনজি অটোরিকশাটি একেবাওে ধুমরে-মুছরে যায়।