হবিগঞ্জ পৌরসভার সবচেয়ে বড় সমস্যা যানজট। এই পৌরসভার সড়কগুলো সরু হওয়ায় দিনের পর দিন যানজট লেগেই থাকে। এই যানজট নিরসনে দীর্ঘদিনের দাবি ছিল পৌরবাসী। কিন্তু বছরের পর বছর অতিবাহিত হলেও যানজট নিরসনে ব্যর্থ হয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ। বারবার প্রতিশ্রুতি দিয়েও নিরাস করা হয়েছে হবিগঞ্জ পৌরসভার নাগরিকদের।

পৌরবাসীর স্বপ্ন ছিল এবারের নির্বাচনে যিনি মেয়র হিসেবে বিজয়ী হবেন তিনি অন্তত শহরের যানজট নিরসনে কাজ করবেন পরিকল্পনা মোতাবেক।

মঙ্গলবার হবিগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী এডভোকেট এনামুল হক সেলিম তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। ইশতেহারে পৌরসভার উন্নয়নে ১০ পরিকল্পনার কথা তুলে ধরলেও সেখানে ঠাঁই পায়নি পৌরবাসীর প্রধান সমস্যা যানজট নিরসনের বিষয়টি।

তার ইশতেহারে গুরুত্ব পেয়েছে- জলাবদ্ধতা, দূষণ মুক্ত পরিবেশ, পরিচ্ছন্ন শহর, স্বল্প মেয়াদী ও দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা, জনসম্পৃক্ত বাজেট, স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক উদ্যোগ এবং মাদক মুক্ত শহর গড়া। তিনি নির্বাচিত হলে এগুলোর উপর গুরুত্ব দিবেন বলে উল্লেখ করেন।

অথচ ১০ দফা পরিকল্পনার কোথাও যানজটের কথা উল্লেখ করা হয়নি।

ইশতেহার ঘোষণা শেষে প্রশ্নোত্তর পর্বে যানজটের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিএনপি প্রার্থী এডভোকেট এনামুল হক জানান, শহরের যানজট নিরসনের বিষয়টি দেখবেন ট্রাফিক বিভাগে। তবে ইতোমধ্যে যেসব টমটম ইজিবাইককে পৌরসভা অনুমোদন দিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে না পারলেও অবৈধদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান তিনি।

মঙ্গলবার বেলা দেড়টার দিকে জেলা বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচনী ইশতেহার তুলে ধরেন জাতীয়তাবাদি দল বিএনপি মনোনিত মেয়র প্রার্থী এডভোকেট এনামুল হক সেলিম।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির আহবায়ক আবুল হাসিম, যুগ্ম আহবায়ক আলহাজ্ব জি, কে গউছসহ বিএনপির ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী।

উল্লেখ্য, হবিগঞ্জ পৌরসভার সবচেয়ে বড় সমস্যা যানজট। এই পৌরসভার সড়কগুলো সরু হওয়ায় দিনের পর দিন যানজট লেগেই থাকে। হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার সামনে থেকে চৌধুরী বাজার পর্যন্ত মাত্র দেড় কিলোমিটারের রাস্তা। অথচ এই সড়কে প্রতিদিন চলাচল করে পাঁচ হাজারেরও বেশি টমটম ইজিবাইক। সেই সঙ্গে কয়েক হাজার রিকশাও। যে কারণে ভুগান্তিতে পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

নগর পরিকল্পনাবিদরা মনে করেন, ছোট শহর হবিগঞ্জে ১ হাজার ২০০ টমটম-ইজিবাইকের বেশি চলাচল করা সম্ভব নয়। অথচ পাঁচ হাজারের বেশি টমটম-ইজিবাইকের অনুমোদন দিয়েছে পৌর কর্তৃপক্ষ। এর মধ্যে নতুন করে আরও শতাধিক টমটম-ইজিবাইকের অনুমোদন দিয়েছে পৌরসভা। এ কারণে যানজটের জন্য পৌর কর্তৃপক্ষকেই দুষছেন তারা।