হবিগঞ্জে বিয়ের প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় এক স্কুলছাত্রীর বাবাকে কুপিয়ে জখম করেছে একদল দূর্বৃত্ত। গুরুত্বর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে সদর উপজেলার আউড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে।

আহত আব্দুল খালেক ওই গ্রামের মৃত রঙ্গ মিয়ার ছেলে।

হাসপাতালে ভর্তি আব্দুল খালেক জানান, সরকারি চাকরির সুবাধে আব্দুল খালেক পরিবার নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে বসবাস করতেন। এ সময় তার সয়সম্পত্তি চাচাত ভাই অনু মিয়া দেখা-শুনা ও ভোগ দখল করে। সম্প্রতি চাকরি থেকে অবসরে নিয়ে বাড়িতে এসে সব সম্পত্তি নিজের কাছে নিয়ে যান তিনি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তার অনু মিয়া।

সম্প্রতি আব্দুল খালেকের চাচাতো ভাই অনু মিয়া জায়গা সম্পত্তি ভোগদখল করতে ভিন্ন পথ অবলম্বন করে। আব্দুল খালেকের স্কুলপড়ুয়া মেয়েকে অনু মিয়ার ছেলের কাছে বিয়ে দেয়ার জন্য প্রস্তাব পাঠায়। মেয়ের বিয়ের বয়স না হওয়ায় আব্দুল খালেক ভাইয়ের পাঠানো প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তার উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ সময় ধারালো অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে জখম করে।

গুরুতর আহত অবস্থায় পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন।

হবিগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) দৌস মোহাম্মদ বলেন, ‘বিষয়টি শুনেছি। আহত আব্দুল খালেককে হাসাপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’