হবিগঞ্জে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মা-মেয়েকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষের লোকজন। বুধবার রাতে সদর উপজেলার রিচি ঈষান কোণা গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটে। স্থানীয় লোকজন তাদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেন।

আহতরা হলেন, ওই গ্রামের সুমনা আক্তার (৩০) ও তার মেয়ে স্থানীয় একটি হাই স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী তামান্না ইসলাম কংকন।

হাসপাতালে ভর্তি সুমনা আক্তার জানান, কয়েক বছর আগে স্বামীর সাথে তার ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। এরপর থেকেই তিনি বাবার বাড়িতে তার প্রাপ্ত সম্পত্তির দখল নিয়ে বসবাস করে আসছেন। কিন্তু তার সেই সম্পত্তি দখলে নিতে মরিয়া হয়ে উঠেন তারই আপন ভাই আলাই মিয়া। এনিয়ে একাধিকবার তাদেরকে হুমকি ধামকি ও মারপিটও করে আলাই মিয়া।

এ ব্যাপারে লাখাই থানা ও গ্রামের ময়-মুরুব্বিদের কাছে বিচার চাইলেও কোন প্রতিকার পাননি। সম্প্রতি সুমনা তার জায়গার উপর একটি ঘর নির্মাণ করেছেন। এ নিয়ে বুধবার রাতে আলাই মিয়া সুমনাকে গালিগালজ শুরু করে। প্রতিবাদ করলে আলাই মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন সুমনার উপর হামলা চালায়। মাকে বাঁচাতে মেয়ে তামান্না এগিয়ে এলে তার উপরও হামলা চালায় প্রতিপক্ষের লোকজন। এ সময় তারা মা ও মেয়েকে কুপিয়ে জখম করে।

চিৎকার শোনে প্রতিবেশিরা এগিয়ে এসে তাদেরকে উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করেন।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুক আলী বলেন, ‘এখনও এ ভ্যাপারে কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। যদি ওই নারী থানায় লিখিত অভিযোগ দেন তাহলে আমরা পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’